BJP নেত্রীর ধর্মীয় বিদ্বেষমূলক মন্তব্য, মোদী সরকারকে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাওয়ার দাবি মধ্যপ্রাচ্যের

বর্তমানে কাতার সফরে আছেন ভারতের উপরাষ্ট্রপতি বেঙ্কাইয়া নায়ডু। তারই মাঝে সে দেশে অবস্থিত ভারতীয় রাষ্ট্রদূতকে তলব করার ঘটনাকে তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছেন আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিশেষজ্ঞরা।
BJP নেত্রীর ধর্মীয় বিদ্বেষমূলক মন্তব্য, মোদী সরকারকে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাওয়ার দাবি মধ্যপ্রাচ্যের
গ্রাফিক্স - সুমিত্রা নন্দন

বিজেপি মুখপাত্র নূপুর শর্মা এক টেলিভিশন বিতর্কে হজরত মুহম্মদকে নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করায়, তা নিয়ে বিশ্বজুড়ে নিন্দার ঝড় উঠেছে। যে ঘটনায় কূটনৈতিক ভাবে সমালোচনার মুখে পড়েছে নরেন্দ্র মোদী সরকার। সৌদি আরব, ইরান, কাতার, কুয়েত সহ একাধিক দেশ একযোগে ঘটনার নিন্দা জানিয়ে মোদী সরকারকে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানিয়েছে।

এই ঘটনায় ইতিমধ্যে কাতার এবং কুয়েত ভারতীয় রাষ্ট্রদূতদের তলব করেছে। একইসঙ্গে দুটি দেশ মোদী সরকারকে এই ঘটনার জন্য জনসমক্ষে ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানিয়েছে। ইরান এই ঘটনাকে ‘ইসলামোফোবিক’ আখ্যা দিয়েছে। অন্যান্য আরব দেশও ভারতের বর্তমান অবস্থা নিয়ে উদ্বিগ্ন।

বর্তমানে কাতার সফরে আছেন ভারতের উপরাষ্ট্রপতি বেঙ্কাইয়া নায়ডু। তারই মাঝে সে দেশে অবস্থিত ভারতীয় রাষ্ট্রদূতকে তলব করার ঘটনাকে তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছেন আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিশেষজ্ঞরা।

ইতিমধ্যে, আরব বিশ্বের ৫৭ দেশের ঐক্যবদ্ধ জোট অর্গানাইজেশন অফ ইসলামিক কো-অপারেশন (OIC)-ও 'ভারতের ক্ষমতাসীন দলের (বিজেপি) নেত্রীর অবমাননাকর মন্তব্য’-এর ‘তীব্র নিন্দা’ জানিয়েছে। সম্প্রতি ভারতের কয়েকটি রাজ্যের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হিজাব নিষিদ্ধের ঘটনার সঙ্গেও এই ঘটনাকে যুক্ত করেছে আইওসি। বিবৃতিতে, ভারতের সংখ্যালঘুদের উপর হিংসার ঘটনা এবং তাদের সম্পত্তি নষ্ট করা কথা উল্লেখ করেছে আরব বিশ্বের ৫৭ দেশের জোট - আইওসি।

এই ইস্যুতে মুখ খুলেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ। তিনি বিজেপির মুখপাত্র নূপুর শর্মার বিতর্কিত মন্তব্যকে ‘অবমাননাকর’ বলে অভিহিত করেছেন। একইসঙ্গে, মোদী সরকারের বিরুদ্ধে ভারতে ‘ধর্মীয় স্বাধীনতাকে নষ্ট করা এবং মুসলমানদের নিপীড়ন’ করার অভিযোগ করেছেন নয়া পাক প্রধানমন্ত্রী।

যদিও এই পরিস্থিতিতে বিবৃতি জারি করেছে কাতারে অবস্থিত ভারতীয় দূতাবাস। তাতে বলা হয়েছে, ‘এটা কোনও ভাবেই ভারত সরকারের মনোভাবের প্রতিফলন নয়। ভারত সরকার বৈচিত্রের মধ্যে ঐক্যের সাংস্কৃতিক পরম্পরা অনুযায়ী, সমস্ত ধর্মকেই সর্বোচ্চ সম্মান দেয়। এ সব কিছু উটকো লোকের কাজ। তাদের বিরুদ্ধে আমাদের সবার এক হয়ে কাজ করতে হবে।‘

তবে, ভারতীয় দূতাবাসের তরফে জারি করা বিবৃতিতে সন্তুষ্ট নয় আরব বিশ্বের একাধিক দেশ। কাতারের বিদেশ মন্ত্রকের পক্ষ থেকে ভারতীয় রাষ্ট্রদূত দীপক মিত্তলকে তলব করে লিখিত এক সরকারি নোট তাঁর হাতে তুলে দিয়েছে। যেখানে বলা হয়েছে, 'এই ধরনের ইসলামবিদ্বেষী মন্তব্যে বিনা শাস্তিতে ছাড়পত্র দেওয়া হলে, তা মানবাধিকারের জন্য বিপজ্জনক হয়ে উঠবে, হিংসা, বিদ্বেষ ছড়াবে। এটি আরও কুসংস্কারের দিকে নিয়ে যেতে পারে।'

ভারতকে উদ্দেশ্য করে কাতারের বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র লোলওয়াহ আলখাতার টুইটারে লিখেছেন, 'বৈচিত্র্য এবং সহাবস্থানের জন্য সুপরিচিত একটি দেশে ইসলামবিদ্বেষ চরম পর্যায়ে পৌঁছেছে।'

BJP নেত্রীর ধর্মীয় বিদ্বেষমূলক মন্তব্য, মোদী সরকারকে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাওয়ার দাবি মধ্যপ্রাচ্যের
বিজেপির ভুলের জন্য ভারত কেন আন্তর্জাতিক স্তরে ক্ষমা চাইবে? নূপুর শর্মা বিতর্কে সুর চড়ালেন বিরোধীরা

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in