Bangladesh: চট্টগ্রামে কনটেনার ডিপোতে ভয়াবহ আগুন, মৃত ৪৩, আহত ৫০০-র বেশি

শনিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে সীতাকুণ্ডে নেদারল্যান্ডস-বাংলাদেশের যৌথ উদ্যোগের বেসরকারি বিএম কনটেইনার ডিপো লিমিটেডে এই ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।
Bangladesh: চট্টগ্রামে কনটেনার ডিপোতে ভয়াবহ আগুন, মৃত ৪৩, আহত ৫০০-র বেশি
বাংলাদেশে কনটেনার ডিপোতে ভয়াবহ আগুন ছবি - সংগৃহীত

বাংলাদেশের চট্টগ্রাম জেলার সীতাকুন্ড উপজেলায় এক ব্যক্তিগত কনটেনার ডিপোতে শক্তিশালী বিস্ফোরণের পর বিশাল অগ্নিকাণ্ডে ৭ দমকলকর্মী সহ মোট ৪৩ জন নিহত হয়েছে এবং প্রায় ৫০০ জন আহত হয়েছে। যাদের মধ্যে ১০ জন পুলিশ কর্মী। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ও সংসদের স্পিকার দুর্ঘটনায় মৃতদের উদ্দেশ্যে শোক জানিয়েছেন।

শনিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে সীতাকুণ্ডে নেদারল্যান্ডস-বাংলাদেশের যৌথ উদ্যোগের বেসরকারি বিএম কনটেইনার ডিপো লিমিটেডে এই ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। এখনও পর্যন্ত মৃতদের মধ্যে ১৫ জনের পরিচয় পাওয়া গেছে বলে স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, আগুন লাগার ৪০ মিনিটের মধ্যে প্রচণ্ড বিস্ফোরণ ঘটে এবং বিস্ফোরক রাসায়নিকের উপস্থিতির কারণে আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। বাংলাদেশ অগ্নিনির্বাপক সংস্থার মহাপরিচালক জানিয়েছেন, কোম্পানির মালিক বা পরিচালক কাউকেই পাওয়া যাচ্ছে না এবং রাসায়নিকের পরিমাণ বা ধরণের বিষয়ে এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি। আরও কত কন্টেনারে বিস্ফোরক রাসায়নিক আছে তাও তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি।

যেহেতু আগুন এখনও জ্বলছে যা পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আসতে আরও ২৪ ঘন্টা সময় লাগতে পারে, তাই ডিপোর কাছাকাছি যাওয়া সম্ভব হচ্ছে না বলেও ওই কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

চট্টগ্রাম ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের সহকারী পরিচালক মোঃ ফারুক হোসেন সিকদার আইএএনএসকে বলেন, "আগুন নেভাতে প্রায় ২৯টি ফায়ার ফাইটিং ইউনিট কাজ করছে এবং ঘটনাস্থলে ৫০টি অ্যাম্বুলেন্স স্ট্যান্ডবাই রয়েছে।"

ডিপো থেকে প্রায় ২১ কিলোমিটার দূরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (সিএমসিএইচ) আইসিইউ শয্যা ইতিমধ্যেই পূর্ণ, অন্যদিকে জরুরি সংকটের কারণে চিকিৎসকদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। আহতদের সিএমএইচ ও সম্মিলিত সামরিক হাসপাতাল (সিএমএইচ)সহ বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জেলার বিভাগীয় কমিশনার মোঃ আশরাফউদ্দিন আইএএনএসকে জানিয়েছেন, ঢাকা থেকে মোতায়েন ১৫০-২০০ সেনা সদস্যও ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন। তিনি বলেন, আগুন প্রায় ১৩ ঘন্টা ধরে জ্বলছে এবং এখনও নিয়ন্ত্রণ করা যায়নি।

নিহত অগ্নিনির্বাপক কর্মীদের সম্পর্কে তিনি বলেন, তারা যখন একটি কন্টেনারের কাছাকাছি ছিল এবং আগুন নেভানোর চেষ্টা করছিলো সেই সময় হঠাৎ বিস্ফোরণ ঘটে।

দমকলের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, ডিপোতে শতাধিক কনটেইনারগুলির মধ্যে কোনটিতে বিস্ফোরক আছে তা তাৎক্ষণিকভাবে সনাক্ত করা কঠিন। "এই অবস্থায় ডিপোতে প্রবেশ করা অত্যন্ত বিপজ্জনক। ফলে আগুন নেভানো অসম্ভব।"

পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি আনোয়ার হোসেন জানান, ডিপোর ভেতর থেকে এখনও বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যাচ্ছে।

বিভাগীয় কমিশনার আইএএনএসকে জানিয়েছেন, দুটি খাল ডিপোর সাথে ড্রেনের মাধ্যমে সংযুক্ত আছে এবং যা বঙ্গোপসাগরের সাথেও যুক্ত। আগুন নিভলে সেনা দল ডিপো থেকে বঙ্গোপসাগরে রাসায়নিক লিকেজের পরিমাণ পরীক্ষা করার জন্য কাজ করবে। তিনি আরও বলেন, নিহতদের পরিবারকে ৫০ হাজার টাকা এবং আহতদের পরিবারকে ২০ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ দেবার কথা ঘোষণা করা হয়েছে।

- with IANS inputs

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in