মায়ানমারে বিক্ষোভকারীদের হটানোর পরিকল্পনা- সেনাবাহিনীর সাথে সংঘর্ষ দফায় দফায়

২০টি মিলিটারি ট্রাক ও রায়ট পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে কাছেই।'সিভিল ডিসওবিডিয়েন্ট মুভমেন্ট'-এর সমর্থকরা এদিন 'বসন্ত বিপ্লব'-এর ডাক দিয়েছে।
মায়ানমারে বিক্ষোভকারীদের হটানোর পরিকল্পনা- সেনাবাহিনীর সাথে সংঘর্ষ দফায় দফায়
মায়ানমারে সেনা শাসনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদকারীদের জমায়েতট্যুইটার থেকে প্রাপ্ত ছবি

ইয়ঙ্গন, ২২ ফেব্রুয়ারি: মায়ানমারে সেনা শাসনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদকারীদের জমায়েত হটাতে প্রয়োজনে প্রাণঘাতী শক্তি ব্যবহারের হুঁশিয়ারী দেওয়া হয়েছে। সেদেশে গণতন্ত্রকামী মানুষরা তিন সপ্তাহ আগে সাধারণ ধর্মঘটের ডাক দিয়েছিলেন। তার বিরুদ্ধে সোমবার এই হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে। আমেরিকার দূতাবাসের আশেপাশে রাস্তা অবরোধ করে হাজারের বেশি মানুষ প্রতিবাদ দেখাচ্ছেন।

২০টি মিলিটারি ট্রাক ও রায়ট পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে কাছেই।'সিভিল ডিসওবিডিয়েন্ট মুভমেন্ট'-এর সমর্থকরা এদিন 'বসন্ত বিপ্লব'-এর ডাক দিয়েছে। জুন্টার তরফে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলা হয়েছে, আন্দোলনকামী মানুষ দাঙ্গা বাধানোর চেষ্টা করছে ২২ ফেব্রুয়ারি। প্রতিবাদকারীরা এখন সাধারণ মানুষের পাশাপাশি যুব সমাজকে উস্কাচ্ছে। যার ফলে রাস্তায় মৃত্যু হচ্ছে বহু মানুষের।

প্রসঙ্গত, সেনা অভ্যুত্থানের বিরোধিতা করে পথে নেমেছেন হাজার হাজার মানুষ। সেই আন্দোলনকে দমাতে নিরস্ত্র আন্দোলনকারীদের লক্ষ্য করে শনিবার ফের এলোপাথারি গুলি ছোড়ে মায়ানমারের সেনা। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয়ে ২ জনের। জখম হয় কমপক্ষে ৩০ জন। এদিন আচমকাই মান্দালয় শহরের বন্দরের কাছে প্রচুর পুলিশ ও সেনাকর্মীরা জড়ো হয়।

উল্লেখ্য, ক্যু বিরোধীরা ওই এলাকায় বিক্ষোভ দেখাচ্ছিলেন।সিন্দারায় বিক্ষোভকারীদের গ্রেপ্তার করা হতে পারে, এই আতঙ্কে ঘরের ভিতর থেকে পুলিশ ও সেনাকর্মীদের লক্ষ্য করে বাসনপত্র ছুঁড়তে শুরু করে। অভিযোগ, পুলিশকে লক্ষ্য করে পাথর ছোঁড়ে বিক্ষোভকারীরাও। পালটা এলোপাথাড়ি গুলি চালাতে শুরু করে পুলিশ ও সেনা। তাজা কার্তুজের পাশাপাশি রাবার বুলেটও ছোড়া হয়।

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in