Afghanistan: মহিলাদের ওপর অত্যাচার - মানবাধিকার সংগঠনের রিপোর্ট খারিজ করলো তালিবান সরকার

হিউম্যান রাইটস ওয়াচ (HRW) রিপোর্টে যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তানে মানবাধিকার লঙ্ঘন, বিশেষ করে শিশুকন্যা, কিশোরী ও মহিলাদের জন্য উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে।
Afghanistan: মহিলাদের ওপর অত্যাচার -  মানবাধিকার সংগঠনের রিপোর্ট খারিজ করলো তালিবান সরকার
আফগানিস্তানে মহিলাদের বিক্ষোভফাইল ছবি দ্য ক্যারাভানের ট্যুইটার হ্যান্ডেলের সৌজন্যে

হিউম্যান রাইটস ওয়াচ (HRW) এর এক সাম্প্রতিক প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করলো আফগানিস্তানের তালিবান নেতৃত্বাধীন সরকার। ওই রিপোর্টে যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তানে মানবাধিকার লঙ্ঘন, বিশেষ করে শিশুকন্যা, কিশোরী ও মহিলাদের জন্য উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে।

শুক্রবার এক বিবৃতিতে, তালিবানের ইসলামিক এমিরেটস অফ আফগানিস্তান (আইইএ) সরকারের মুখপাত্র জাবিহুল্লাহ মুজাহিদ জানিয়েছেন, বর্তমানে দেশে যে কোনো সময়ের তুলনায় নাগরিকদের ভালো মানবাধিকার প্রদান করা হচ্ছে। টোলো নিউজ একথা জানিয়েছে।

তিনি বলেন, "ইসলামিক এমিরেটস জাতিসংঘ এবং মানবাধিকার আইনজীবী সংস্থাগুলোকে এই অপপ্রচারে কান না দেওয়ার জন্য আবেদন জানিয়েছে। তাদের অবশ্যই দেশের সত্য বিবেচনা করতে হবে এবং মেনে নিতে হবে। আফগানিস্তানে বিগত ২০ বছরের তুলনায় মানবাধিকারকে বর্তমানে সবথেকে বেশি সম্মান করা হয়।" তিনি বলেন, এইচআরডব্লিউ রিপোর্ট "ভুল এবং ভিত্তিহীন"।

এইচআরডব্লিউ তার প্রতিবেদন প্রকাশের একদিন পরে মুজাহিদের মন্তব্য প্রকাশ্যে এসেছে। যা আইইএ-এর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার ছাড় বন্ধ করার আহ্বান জানিয়েছে।

এইচআরডব্লিউ-র মহিলা অধিকার রক্ষা সংস্থার অ্যাসোসিয়েট ডিরেক্টর হেদার বার জানিয়েছেন, "হিউম্যান রাইটস ওয়াচ আজ একটি নতুন বিবৃতি জারি করেছে, যেখানে আফগানিস্তানে মহিলা ও কিশোরীদের বিরুদ্ধে তালিবানিদের দ্বারা নিপীড়নের ক্রমবর্ধমান মাত্রার প্রতিক্রিয়ায় রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের কিছু সুনির্দিষ্ট পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে।"

"জুন মাসে, তালিবান নেতৃত্বের চোদ্দ সদস্যের জন্য বর্তমানে যে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞায় ছাড় দেওয়া রয়েছে তার মেয়াদ শেষ হয়ে যাবে, সেই সময়ে আমরা নিরাপত্তা পরিষদকে বলছি, কেবল সেই ছাড়গুলি বাতিল করা নয়, এর প্রয়োজন আছে কিনা তাও বিবেচনা করতে হবে। এছাড়াও অতিরিক্ত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধেও ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি ভেবে দেখা উচিৎ।"

আফগানিস্তানে হিংসাত্মক কার্যকলাপের জন্য রাষ্ট্রসংঘের প্রতিক্রিয়ার অংশ হিসাবে ১৯৯৯ সালে প্রথম কিছু আইইএ নেতাদের উপর ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয় এবং তালিবান সরকারের ১৪ জন সদস্যকে শান্তি আলোচনায় অংশগ্রহণের অনুমতি দেওয়ার জন্য তিন বছর আগে এটি আংশিকভাবে স্থগিত করা হয়েছিল বলে জানিয়েছে টোলো নিউজ।

জানা গেছে, রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ জুন মাসে মানবাধিকার, বিশেষ করে মহিলাদের বিষয়ে একটি বৈঠক করবে।

- with inputs from IANS

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in