কবি বিষ্ণু দে - এক ব্যতিক্রমী শিল্প চেতনা

কবি বিষ্ণু দে - এক ব্যতিক্রমী শিল্প চেতনা
কবি বিষ্ণু দেফাইল ছবি সংগৃহীত

তিরিশের কাব্য ধারায় বিষ্ণু দের মধ্যেই প্রথম রাবীন্দ্রিক কাব্যবলয় অতিক্রমণের প্রয়াস লক্ষ করা যায়। মার্কসীয় তত্ত্বকে জীবনাবেগ ও শিল্প সম্মত করে উপস্হাপনার ক্ষেত্রে তাঁর সাফল্য অপরিসীম। বিষ্ণু দে একাধারে কবি, প্রাবন্ধিক, শিল্পানুরাগী এবং চিত্র সমালোচক।

১৯০৯ সালের ১৮ ই জুলাই কোলকাতায় তাঁর জন্ম। আজ তাঁর ১০৯ তম জন্মদিন। আধুনিক বাঙালি কবিদের মধ্যে অন্যতম শ্রেষ্ঠ কবি ও চিন্তাশীল ব্যক্তিত্ব বিষ্ণু দে তাঁর কাব্য রচনার মূল গঠনে যেমন ইউরোপীয় আধুনিক কবিদের চিহ্ন রেখেছেন, তেমনই কবি টি এস এলিয়টের রচনাশৈলী এবং ভাবনা দ্বারাও তিনি প্রভাবিত হয়েছিলেন। এর পাশাপাশি বামপন্থী দর্শনে উদ্বুদ্ধ বিষ্ণু দের রচনায় প্রভাব ফেলেছিল মার্কশীয় দর্শন।

১৯২৩ সালে কল্লোল পত্রিকা প্রকাশের ফলে যে নতুন সাহিত্য উদ্যম ও ব্যতিক্রমী শিল্প চেতনার সৃষ্টি হয়, বিষ্ণু দে ছিলেন তার অন্যতম উদ্যোক্তা। ১৯৩০ সালে কল্লোল পত্রিকা বন্ধ হয়ে গেলে তিনি ১৯৩১ শে সুধীন্দ্রনাথ দত্তের পরিচয় পত্রিকার দায়িত্ব পালন করেন ১৯৪৭ সাল পর্যন্ত।

কবি বিষ্ণু দের মধ্যে নতুন এক পথ দেখতে পেয়েছিলেন কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। তিনি বেছে নিয়েছিলেন নগর জীবনের নাগরিক শব্দমালাকে, যে শব্দমালা তাঁর কবিতায় আমরা পাই প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত। তিনি নিজে নিরুক্ত নামে একটি পত্রিকা সম্পাদনা করতেন। শুধুমাত্র সাহিত্যে নয় - শিল্প, সঙ্গীত ও সংস্কৃতির বিবিধ বিষয়ে তাঁর একাধিক বুদ্ধিদীপ্ত রচনা অভিনন্দিত হয়েছে।

তাঁর রচিত উল্লেখযোগ্য গ্রন্থগুলির মধ্যে ১৯৩৩ শে উর্বশী ও আর্টেমিসৎ, ১৯৩৭ শে চোরাবালি, ১৯৪৪ শে সাতভাই চম্পা , ১৯৪৬ শে রুচি ও প্রগতি, ১৯৫২ তে সাহিত্যের ভবিষ্যত, ১৯৫৩ তে নাম রেখেছি কোমল গান্ধার, ১৯৫৮ তে তুমি শুধু পঁচিশে বৈশাখ, ১৯৬৩ তে স্মৃতি সত্তা ভবিষ্যত, ১৯৬৬ তে রবীন্দ্রনাথ ও শিল্প সাহিত্যে আধুনিকতার সমস্যা, ১৯৬৭ তে মাইকেল রবীন্দ্রনাথ ও অন্যান্য জিজ্ঞাসা, ১৯৭২ রে In the sun and the rain প্রভৃতি রচনা সংকলনের প্রাপ্য রয়্যালটি তিনি কমিউনিস্ট পার্টিতে দান করেছিলেন।

মার্কসবাদী চেতনায় উদ্বুদ্ধ কবি বিষ্ণু দে ত্রিশোত্তর বাংলা কবিতার নব্যধারার আন্দোলনের প্রধান পাঁচজন কবির অন্যতম ছিলেন। 'ওফেলিয়া জিজীবিষা' ঘোড়সওয়ার' ইত্যাদি তাঁর লেখা অন্যতম কবিতা । তিনি একাধারে ছিলেন সঙ্গীত শিল্পী ভীষ্মদেব চট্টোপাধ্যায়ের সতীর্থ এবং চিত্র শিল্পী যামিনী রায়ের বন্ধু। যামিনী রায়ের অনুপ্রেরণাতেই ১৯৪৪ শে তিনি আর্ট অফ যামিনী রায়, ১৯৫৮ এ দ্য পেন্টিংস অফ রবীন্দ্রনাথ, ১৯৫৯ শে ইন্ডিয়া এ্যন্ড মর্ডান আর্ট রচনা করেন।

১৯৫৮ সালে বিষ্ণু দেকে কবি সম্বর্ধনা দেওয়া হয়। ১৯৬৬ তে সাহিত্য একাডেমি পুরস্কার, ১৯৬৭ তে নেহেরু স্মৃতি পুরস্কার, ১৯৭১ রে তিনি তাঁর 'স্মৃতি সত্তা ভবিষ্যত বইটির জন্য ভারতের সর্বোচ্চ সাহিত্য পুরস্কার রাষ্ট্রীয় জ্ঞানপীঠ পুরস্কার লাভ করেছিলেন। তিনি 'রুশতি পঞ্চশতীর' জন্য' সোভিয়েত ল্যান্ড পুরস্কার পেয়েছিলেন। ভারতীয় গননাট্য সংঘ, প্রগতি লেখক সংঘ, সোভিয়েত সুহৃদ সমিতি প্রভৃতি সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন ।

১৯৮২ সালের ৩রা ডিসেম্বর কলকাতায় কবি বিষ্ণু দের মৃত্যু হয় ।

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in