Punjab: নতুন দল ঘোষণা শীঘ্রই, বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির সঙ্গে সমঝোতার ইঙ্গিত অমরিন্দর সিং-এর

অমরিন্দর সিং জানিয়েছেন তিনি শীঘ্রই তার নিজের রাজনৈতিক দলের ঘোষণা করবেন। যে রাজনৈতিক দল জনগণের স্বার্থে কাজ করবে। যে কৃষকরা এক বছরেরও বেশি সময় ধরে তাদের অধিকারের জন্য লড়াই করছেন তাঁদের পাশে দাঁড়াবে।
Punjab: নতুন দল ঘোষণা শীঘ্রই, বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির সঙ্গে সমঝোতার ইঙ্গিত অমরিন্দর সিং-এর
ক‍্যাপ্টেন অমরিন্দর সিংফাইল ছবি ট্রিবিউন ইন্ডিয়ার সৌজন্যে

আনুষ্ঠানিকভাবে কংগ্রেসকে বিদায় জানিয়ে অবশেষে নিজের রাজনৈতিক দল ঘোষণার কথা জানালেন পাঞ্জাবের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং। যদিও কংগ্রেসে থেকেই তিনি দুবার পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী এবং তিনবার রাজ্য পার্টির সভাপতি হয়েছেন। মঙ্গলবার অমরিন্দর সিং জানিয়েছেন যে তিনি শীঘ্রই তার নিজের রাজনৈতিক দলের ঘোষণা করবেন। যে রাজনৈতিক দল জনগণের স্বার্থে কাজ করবে। যে কৃষকরা এক বছরেরও বেশি সময় ধরে তাদের অধিকারের জন্য লড়াই করছেন তাঁদের পাশে দাঁড়াবে।

পাঞ্জাবের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেছেন যে, কৃষকদের সমস্যা তাদের স্বার্থে সমাধান করা হলে রাজ্যে আগামী বছরের বিধানসভা নির্বাচনের জন্য তিনি বিজেপির সঙ্গে আসন সমঝোতার বিষয়ে আশাবাদী।

মঙ্গলবার ধারাবাহিক টুইটে তাঁর মিডিয়া উপদেষ্টা রবীন ঠকরাল অমরিন্দর সিংহকে উদ্ধৃত করে বলেন, "পাঞ্জাবের ভবিষ্যতের জন্য লড়াই চলছে। পাঞ্জাব এবং এর জনগণের স্বার্থে শীঘ্রই আমার নিজস্ব রাজনৈতিক দল চালু করার ঘোষণা করবো। এর সঙ্গেই যুক্ত থাকবে আমাদের কৃষকরা, যারা এক বছর ধরে তাদের বেঁচে থাকার জন্য লড়াই করছে।"

অন্য এক টুইটে, অমরিন্দর সিং বলেন, "যদি কৃষকদের স্বার্থে কৃষক সমস্যার সমাধান করা হয় তাহলে ২০২২ সালে পাঞ্জাব বিধানসভার নির্বাচনে বিজেপির সঙ্গে আসন সমঝোতার বিষয়ে তিনি আশাবাদী। এছাড়াও অন্যান্য সমমনস্ক দলের সঙ্গে আঁতাতের ইঙ্গিত দিয়েছেন তিনি। যার মধ্যে আছে আকালি দলের কিছু গোষ্ঠী। বিশেষ করে ধিন্দসা এবং ব্রহ্মপুরা গোষ্ঠী।

অমরিন্দর সিং আরও বলেন, যতক্ষণ না তিনি তার জনগণ এবং তার রাজ্যের ভবিষ্যৎ সুরক্ষিত করতে পারবেন ততক্ষণ তিনি বিশ্রাম নেবেন না।

অমরিন্দর সিংয়ের উদ্ধৃতি দিয়ে এক টুইটে লেখা হয়েছে, "পাঞ্জাবের রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা এবং অভ্যন্তরীণ ও বাহ্যিক হুমকি থেকে সুরক্ষা দরকার। আমি আমার জনগণকে প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি যে শান্তি ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে যা করতে হবে তা করব।"

অমরিন্দর সিং বলেন, "মুখ্যমন্ত্রী পদ থেকে সরে যাওয়ার তিন সপ্তাহ আগে, আমি সোনিয়া গান্ধীকে আমার পদত্যাগের প্রস্তাব দিয়েছিলাম। কিন্তু তিনি আমাকে কাজ চালিয়ে যেতে বলেছিলেন।" গত ১ অক্টোবর তিনি বলেছিলেন, যে অপমানজনক পদ্ধতিতে তাঁকে পদত্যাগের দিকে ঠেলে দেওয়া হয়েছিল। কংগ্রেস বিধায়কদলের বৈঠকের কয়েক ঘন্টা আগে তাঁকে পদত্যাগ করতে বাধ্য করা হয়েছিলো বলেও তাঁর অভিযোগ। তিনি জানিয়েছিলেন, "বিশ্ব দেখেছিল যে আমার উপর ক্রমশই অপমান বেড়েছে এবং তবুও রাওয়াত উল্টো দাবি করেছেন।"

রাওয়াতের মন্তব্যকে উপহাস করে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বলেন, গত কয়েক মাস ধরে তাঁর একমাত্র চাপ ছিল কংগ্রেসের প্রতি তাঁর নিজের আনুগত্য বজায় রাখা। যে কারণে তিনি অপমানের পর অপমান সহ্য করেও মুখ বন্ধ করে ছিলেন।

তাঁর বক্তব্য অনুসারে, "যদি দল আমাকে অপমান করতে না চায়, তাহলে নভজোত সিং সিধুকে কেন সোশ্যাল মিডিয়া এবং অন্যান্য পাবলিক প্ল্যাটফর্মে প্রকাশ্যে আমার সমালোচনা ও আক্রমণ করার অনুমতি দেওয়া হয়েছিল? আমার কর্তৃত্বকে ক্ষুণ্ণ করা হয়েছিলো কেন?

মুখ্যমন্ত্রী পদ থেকে পদত্যাগ করার পর থেকে অমরিন্দর সিং প্রকাশ্যে সিধুকে আক্রমণ করে বলেছিলেন যে তিনি তাঁকে মুখ্যমন্ত্রী পদে বসা থেকে আটকাতে সর্বশক্তি দিয়ে লড়াই করবেন এবং এই ধরনের 'বিপজ্জনক লোক'-এর হাত থেকে দেশকে বাঁচাতে যেকোনো ত্যাগ স্বীকার করতে প্রস্তুত থাকবেন।

তিনি আরও দাবি করেন যে গান্ধী ভাইবোন (প্রিয়াঙ্কা এবং রাহুল) "বেশ অনভিজ্ঞ" এবং "তাদের উপদেষ্টারা স্পষ্টভাবে তাদের পথভ্রষ্ট করছেন"।

- with Agency input

ক‍্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং
Punjab: কংগ্রেস ছেড়ে নতুন দল গড়ছেন ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং, সম্ভাব্য নাম পাঞ্জাব বিকাশ পার্টি

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in