UP: নির্বাচনের ৬ মাস আগে মিডিয়া কর্তৃক সমীক্ষা নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হোক, কমিশনকে অনুরোধ মায়াবতীর

অনুষ্ঠান স্থল থেকে বহুজন সমাজবাদী পার্টির প্রতিষ্ঠাতা তথা দলিত নেতা কাঁশিরামকে ভারত রত্ন দেওয়ার দাবিও তুলেছেন মায়াবতী।
UP: নির্বাচনের ৬ মাস আগে মিডিয়া কর্তৃক সমীক্ষা নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হোক, কমিশনকে অনুরোধ মায়াবতীর
মায়াবতীফাইল ছবি সৌজন্যে ডেকান হেরাল্ড

নির্বাচনের আগে সংবাদমাধ্যম বা অন‍্যান‍্য সমীক্ষা সংস্থাগুলোর দ্বারা করা যে কোনো রকম সমীক্ষা নিষিদ্ধ ঘোষণা করার দাবি তুললেন বহুজন সমাজবাদী পার্টির সুপ্রিমো মায়াবতী। নির্বাচন কমিশনকে এই বিষয়ে চিঠি লিখবেন বলে জানিয়েছেন তিনি। তাঁর দাবি, সমীক্ষার কারণে নির্বাচন প্রভাবিত হয়।

বহুজন সমাজবাদী পার্টির প্রতিষ্ঠাতা কাঁশি রামের ১৫তম মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানে মায়াবতী বলেন, "শীঘ্রই নির্বাচন কমিশনকে একটি চিঠি লেখা হবে যেখানে নির্বাচনের ছয় মাস আগে মিডিয়া বা অন্যান্য সংস্থার দ্বারা সমীক্ষা নিষিদ্ধ ঘোষণা করতে বলা হবে, যাতে এই সমীক্ষার দ্বারা নির্দিষ্ট রাজ‍্যের নির্বাচন প্রভাবিত না হয়। সমীক্ষার আড়ালে ব‍্যবসা করা হচ্ছে।"

পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচনের প্রসঙ্গ তুলে বিজেপিকে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, "আপনারা জানেন পশ্চিমবঙ্গে যখন বিধানসভা নির্বাচন চলছিল, তখন সমীক্ষায় দেখানো হলো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পিছিয়ে থাকবেন। কিন্তু যখন রেজাল্ট বেরোলো দেখা গেলো সম্পূর্ণ উল্টো। যারা ক্ষমতা দখলের স্বপ্ন দেখছিল, তাদের স্বপ্ন টুকরো টুকরো হয়ে গেল। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ক্ষমতায় ফিরেছিলেন। এই সমীক্ষাগুলো দ্বারা জনগণকে বিভ্রান্ত করা উচিত নয়।"

বিজেপি-কে আক্রমণ করে তিনি আর বলেন, "পরিবেশ নিজেদের অনুকূলে রাখতে রাষ্ট্রীয় সংস্থাগুলিকে ব‍্যবহার করছে বিজেপি। এটাও সবাইয়ের জানা যে যখন এই ধরণের কৌশলগুলো কাজ করবে না, তখন ওই দলটি (বিজেপি) নির্বাচনকে হিন্দু-মুসলিম রঙ দেবে এবং আড়ালে থেকে তার পূর্ণ রাজনৈতিক সুবিধা নেওয়ার চেষ্টা করবে।"

অনুষ্ঠান স্থল থেকে বহুজন সমাজবাদী পার্টির প্রতিষ্ঠাতা তথা দলিত নেতা কাঁশিরামকে ভারত রত্ন দেওয়ার দাবিও তুলেছেন মায়াবতী।

প্রসঙ্গত, আগামী বছর উত্তরপ্রদেশ সহ পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন। তার আগে একাধিক সমীক্ষক সংস্থার সমীক্ষায় দেখা গেছে উত্তরপ্রদেশে ক্ষমতা ধরে রাখছে বিজেপি।

মায়াবতী
উত্তরপ্রদেশ সহ পাঁচ ভোটমুখী রাজ্যে গত ১ বছরে জীবনযাত্রার মান খারাপ হয়েছে - সমীক্ষা

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in