Karnataka: BJPর বিরুদ্ধে ভোটার আইডি কেলেঙ্কারির অভিযোগ, মুখ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি কংগ্রেসের

ক্ষমতাসীন বিজেপির বিরুদ্ধে ভোটার আইডি কেলেঙ্কারির অভিযোগ এনে মুখ্যমন্ত্রী বাসভরাজ বোম্মাইয়ের পদত্যাগের পাশাপাশি কর্ণাটক হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির দ্বারা এই কেলেঙ্কারির তদন্ত দাবি করেছে কংগ্রেস।
কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী বাসবরাজ বোম্মাই
কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী বাসবরাজ বোম্মাই ফাইল ছবি সংগৃহীত

কর্ণাটকে ভোটার আইডি কেলেঙ্কারির অভিযোগ এনে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বাসভরাজ বোম্মাইয়ের পদত্যাগ দাবি করল কংগ্রেস রাজ্য শাখা। বৃহস্পতিবার রাজ্যের ক্ষমতাসীন বিজেপির বিরুদ্ধে ভোটার আইডি কেলেঙ্কারির অভিযোগ এনে মুখ্যমন্ত্রী বাসভরাজ বোম্মাইয়ের পদত্যাগের পাশাপাশি কর্ণাটক হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির দ্বারা এই কেলেঙ্কারির তদন্ত দাবি করেছে কংগ্রেস।

বেঙ্গালুরুতে কর্ণাটক প্রদেশ কংগ্রেস (কেপিসিসি) সদর দফতরে এক যৌথ সাংবাদিক সম্মেলনে, রাজ্যের দলীয় দায়িত্বপ্রাপ্ত রণদীপ সিং সুরজেওয়ালা, বিরোধী নেতা সিদ্দারামাইয়া এবং কর্ণাটক কংগ্রেসের সভাপতি ডি কে শিবকুমার জানিয়েছেন, তারা এই বিষয়ে ফৌজদারি অভিযোগ দায়ের করবেন।

এদিনের সাংবাদিক সম্মেলনে সুরজেওয়ালা বলেন, "সরকার ভোটারদের তথ্য চুরি করছে। ক্ষমতাসীন বিজেপি এক বেসরকারি সংস্থার মাধ্যমে নির্বাচনী জালিয়াতি করছে। বোম্মাই, দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী, বিবিএমপির বিশেষ কমিশনার তুষার গিরিনাথ এবং নির্বাচন কমিশন ভোটারদের তথ্য চুরি করার জন্য একটি দল হিসেবে কাজ করছে।"

শিবকুমার অভিযোগ করেন, রাজ্যের হাজার হাজার বিজেপি কর্মীকে ভোটার তালিকায় কারচুপি করার জন্য নিযুক্ত করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, "বিজেপি কর্মীদের একটি বেসরকারী সংস্থার মাধ্যমে চুক্তির ভিত্তিতে নিয়োগ করা হয়েছে। ভোটার আইডি পুনর্নবীকরণের প্রক্রিয়া চালানোর জন্য কর্তৃপক্ষ তাদের পরিচয়পত্র দিয়েছে।"

শুধুমাত্র বেঙ্গালুরুতেই প্রায় ১৭ থেকে ১৮ হাজার এই ধরনের পরিচয়পত্র দেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন, বিজেপি কর্মীরা ঘরে ঘরে গিয়ে ভোটারদের সমস্ত তথ্য সংগ্রহ করছেন।

তাঁর অভিযোগ, "এঁরা খালি বাড়ি চিহ্নিত করছে, ভোটারদের রাজনৈতিক সংশ্লিষ্টতা বিষয়ে খবর নিচ্ছে এবং নির্বাচনে জেতার জন্য নতুন ভোটার তালিকা নিয়ে আসছে।"

ভারতীয় সংবিধানের ৩২৪, ৩২৫, ৩২৬ অনুচ্ছেদ এবং জনপ্রতিনিধিত্ব আইনের ২৮ অনুচ্ছেদে উল্লেখ করা আছে যে শুধুমাত্র সরকারী কর্মচারীরা ভোটার তালিকা সংক্রান্ত কাজগুলি পরিচালনা করতে পারেন। শিবকুমার বলেন, ক্ষমতাসীন বিজেপি এবং আমলাতন্ত্র এই নিয়মগুলি লঙ্ঘন করেছে।

মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশেই এসব করা হচ্ছে বলে দাবি করেছেন সিদ্দারামাইয়া। তিনি বলেন, "তাঁকে (বোম্মাইকে) গ্রেপ্তার করা উচিত। তাঁর পদত্যাগ করা উচিত কারণ তিনি দায়িত্ব পালন করার নৈতিকতা হারিয়েছেন। কর্ণাটকের ইতিহাসে মুখ্যমন্ত্রীর দ্বারা এই ধরনের ষড়যন্ত্র, চুরি কখনও ঘটেনি।"

কেপিসিসি প্রচার কমিটির চেয়ারম্যান এবং বিধায়ক, এম বি পাটিল জানিয়েছেন, প্রাথমিকভাবে এটি বেঙ্গালুরুর মহাদেবপুরা কেন্দ্রে করা হয়েছিল। "এখন, বিজেপি পুরো বেঙ্গালুরু এবং রাজ্যের সমস্ত ২২৪ বিধানসভা কেন্দ্রেই এই কাজ করছে।"

শিবকুমার আরও অভিযোগ করেছেন যে, জালিয়াতি করে সংখ্যালঘু, এসসি/এসটি এবং অন্যান্য অনগ্রসর শ্রেণির ভোট ভোটার তালিকা থেকে বাদ দেওয়া হচ্ছে।

"বিজেপি কর্মীরা ভোটারদের রাজনৈতিক প্রবণতা সম্পর্কে খবর নিচ্ছে এবং তাদের নাম বের করছে বা তাদের নাম অন্য ওয়ার্ডে স্থানান্তর করছে। বিজেপি প্রার্থীদের সাহায্য করার জন্য অন্যান্য নির্বাচনী এলাকা থেকে ভোটারদের এনে খালি বাড়িতে বসানো হচ্ছে।"

তিনি দাবি করেন, হাজার হাজার বিজেপি কর্মী যাদেরকে সরকার পরিচয়পত্র দিয়েছে তাদের গ্রেপ্তার করা উচিত এবং সংগ্রহ করা সম্পূর্ণ তথ্য অবরোধ করা উচিত।

এই ঘটনা প্রসঙ্গে সুরজেওয়ালার প্রশ্ন, "একটি বেসরকারি সংস্থাকে নির্বাচন কমিশন এবং বিবিএমপির পক্ষে কাজ করার অনুমতি কে দিয়েছে? কীভাবে ২৯ জানুয়ারী এবং ২৮ অগাস্ট তারিখের সরকারী আদেশগুলি এই ব্যক্তিগত সংস্থাকে অনুমোদন দেওয়ার জন্য জারি করা হয়েছিল? "কেন এই বিষয়ে বিজ্ঞাপন জারি করার নির্দেশ দেওয়া হল না, যেখানে বোম্মাই নিজেও এর সঙ্গে যুক্ত আছেন? প্রাইভেট পার্টিকে নির্বাচনের কাজ দেওয়ার আগে ইনচার্জ মন্ত্রী, বিবিএমপি বা নির্বাচন কর্তৃপক্ষ কেন কোনো বিজ্ঞপ্তি জারি করল না?"

তাঁর আরও প্রশ্ন, "কীভাবে একটি ব্যক্তিগত সংস্থাকে জাত, ধর্ম, লিঙ্গ, মাতৃভাষা, বৈবাহিক অবস্থা, আধারের মতো ব্যক্তিগত ভোটারের তথ্য সংগ্রহ করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে? কীভাবে ভোটারদের আধার নম্বর, ফোন নম্বর, ঠিকানা, ভোটার আইডি নম্বর, ভোটারদের আইডি সংগ্রহের অনুমতি দেওয়া হয়েছে? এটা কি নিরীহ ভোটারদের ওপর গোপনীয়তা ও প্রতারণার সুস্পষ্ট ব্যবস্থা তৈরি করা নয়?”

তাঁর আরও প্রশ্ন, "সরকার কর্তৃক অনুমোদিত একটি ব্যক্তিগত সংস্থার মাধ্যমে ভোটারদের ব্যক্তিগত তথ্য কি তার ব্যক্তিগত অ্যাপ ডিজিটাল সমীক্ষায় আপলোড করা যেতে পারে?”

- with inputs from IANS

কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী বাসবরাজ বোম্মাই
Rajasthan Congress: গেহলট-পাইলট বিতর্কের জের! ইনচার্জ পদ থেকে ইস্তফা অজয় মাকেনের

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in