Gujarat: বিজয় রূপানির ইস্তফার পর রাজ্যের নতুন মুখ্যমন্ত্রী হচ্ছেন ভূপেন্দ্র প্যাটেল
গুজরাটের নতুন মুখ্যমন্ত্রী ভূপেন্দ্র প্যাটেলফাইল ছবি ফেসবুক থেকে সংগৃহীত

Gujarat: বিজয় রূপানির ইস্তফার পর রাজ্যের নতুন মুখ্যমন্ত্রী হচ্ছেন ভূপেন্দ্র প্যাটেল

একাধিক নাম নিয়ে জল্পনা হলেও সেইসব নাম বাদ দিয়ে গুজরাটের নতুন মুখ্যমন্ত্রী হচ্ছেন ভূপেন্দ্র প্যাটেল। তিনি রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রূপানির স্থলাভিষিক্ত হবেন।

একাধিক নাম নিয়ে জল্পনা হলেও সেইসব নাম বাদ দিয়ে গুজরাটের নতুন মুখ্যমন্ত্রী হচ্ছেন ভূপেন্দ্র প্যাটেল। তিনি রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রূপানির স্থলাভিষিক্ত হবেন। রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী আনন্দীবেন প্যাটেলের ঘনিষ্ঠ ভূপেন্দ্র প্যাটেলকেই এদিন রাজ্যের পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে বেছে নেওয়া হয়েছে।

বিজেপির শক্ত ঘাঁটি গুজরাটের ঘাটলোডিয়া বিধানসভা কেন্দ্র থেকে নির্বাচিত বিধায়ক ভূপেন্দ্র প্যাটেল। ২০১৭ সালের গুজরাট বিধানসভা নির্বাচনে আনন্দীবেন প্যাটেলের ছেড়ে যাওয়া এই আসনে তিনি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন এবং কংগ্রেসের শশীকান্ত প্যাটেলকে ১,১৭,৭৫০ ভোটে হারিয়ে নির্বাচিত হন।

রাজ্যের বিধায়ক পদ অলংকৃত করা ছাড়াও তিনি আহমেদাবাদ মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশন-এর স্ট্যান্ডিং কমিটির দু’বারের চেয়ারম্যান এবং আহমেদাবাদ আরবান ডেভালপমেন্ট অথরিটির প্রাক্তন চেয়ারম্যান।

গতকাল রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রূপানির আচমকা পদত্যাগের পর এদিন জরুরি ভিত্তিতে বৈঠকে বসে গুজরাট বিজেপি বিধায়ক দল। সেখান থেকেই মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে ভূপেন্দ্র প্যাটেলের নাম চূড়ান্ত হয়। গত আগস্ট মাসের ৭ তারিখে মুখ্যমন্ত্রীত্বের পাঁচ বছর পূর্ণ করেছিলেন বিজয় রূপানি। ২০১৬ সালের ৭ আগস্ট তিনি মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নেন।

প্রসঙ্গত, গত তিনমাসে এই নিয়ে তৃতীয় বার কোনো রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বদল করলো বিজেপি। এর আগে কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী বি এস ইয়েদুরিয়াপ্পাকে সরিয়ে ক্ষমতায় বসানো হয় বি এস বোম্মাইকে। উত্তরাখন্ডে তীরথ সিং রাওয়াতের বদলে মুখ্যমন্ত্রী করা হয় পুস্কর সিং ধামিকে। এবার গুজরাটে বিজয় রূপানিকে সরিয়ে মুখ্যমন্ত্রী করা হল ভূপেন্দ্র প্যাটেলকে।

শনিবার সকালেই আহমেদাবাদ আসেন বিজেপির সাধারণ সম্পাদক বি এল সন্তোষ। দলীয় রাজ্য দপ্তরে তিনি এক জরুরি বৈঠকে মিলিত হন। যে বৈঠকে ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রূপানি, উপমুখ্যমন্ত্রী নীতিন প্যাটেল, গুজরাট বিজেপি সভাপতি সি আর পাটিল এবং রাজ্য সাংগঠনিক সম্পাদক রত্নাকর। এই বৈঠকের পরেই পদত্যাগ করেন বিজয় রূপানি।

গতকাল গান্ধীনগরে গিয়ে রাজ্যপাল আচার্য দেবব্রতের কাছে পদত্যাগপত্র জমা দেন মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রূপানি। নির্ধারিত সময়ের প্রায় ১৫ মাস আগে তাঁর এই ইস্তফাকে ঘিরে শুরু হয় রাজনৈতিক জল্পনা। সূত্র অনুসারে, রাজ্যের কোভিড পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থতার কারণেই দলীয় নেতৃত্বের বিরাগভাজন হয়েছিলেন রূপানি। যার ফলস্বরূপ তিনি পদত্যাগ করতে বাধ্য হন।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in