মোদীর গুজরাট সফরের পরই ভোটের তারিখ ঘোষণা কমিশনের, দু'দফায় হবে ভোট, ৮ ডিসেম্বর গণনা

এই বছরের শেষের দিকে হিমাচল প্রদেশ এবং গুজরাটে বিধানসভা নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল। হিমাচলের নির্বাচনের তারিখ বেশ কিছুদিন আগেই ঘোষণা করা হলেও তাৎপর্যপূ্ণভাবে ঘোষণা করা হয়নি গুজরাটের ভোটের দিনক্ষণ।
১, ৫ ডিসেম্বর গুজরাটে ভোট ঘোষণা নির্বাচন কমিশনের
১, ৫ ডিসেম্বর গুজরাটে ভোট ঘোষণা নির্বাচন কমিশনেরগ্রাফিক্স - নিজস্ব

গুজরাটের বিধানসভা নির্বাচনের নির্ঘন্ট বেজে গেলো। ১৮২ আসনের গুজরাটে ভোটগ্রহণ হবে দুই দফায়। প্রথম দফা হবে ১ ডিসেম্বর ও দ্বিতীয় দফা হবে ৫ ডিসেম্বর। নির্বাচনের ফল জানা যাবে ৮ ডিসেম্বর। মুখ্য নির্বাচন কমিশনার রাজীব কুমার বৃহস্পতিবার বেলা ১২টার সময় সাংবাদিক সম্মেলন করে তা স্পষ্ট করে জানিয়ে দিলেন।

সমস্ত রাজনীতিবিদদের নজর এখন গুজরাট নির্বাচনের দিকে। মোদী-রাজ্যের সমস্ত রাজনৈতিক দলগুলির প্রস্তুতিও তুঙ্গে। শুধু অপেক্ষা ছিল ভোটের দিন নির্ধারণের। সেটাও হয়ে গেল। রাজনৈতিক দলগুলির প্রার্থীদের মনোনয়ন জমা দেওয়ার শেষ তারিখ যথাক্রমে ১৪ নভেম্বর ও ১৭ নভেম্বর । আর প্রার্থীপদ প্রত্যাহারের শেষ দিন যথাক্রমে ১৭ নভেম্বর ও ২১ নভেম্বর। গুজরাটের মোট ভোটার ৫ কোটির কিছু বেশি। যার মধ্যে পুরুষ ভোটার ২,৫৩,৩৬,৬১০ জন ও মহিলা ভোটার ২,৩৭,৫১,৭৩৮ জন। নতুন ভোটার ১১,৬২,৫২৮ জন। নতুন ভোটারের মধ্যে ৪ লক্ষ ৬১ হাজার ভোটার আছেন যাঁরা এই নির্বাচনে নিজের প্রথম ভোট দেবেন।

মুখ্য নির্বাচন কমিশনার রাজীব কুমার বলেন, প্রথম দফার জন্য ৫ নভেম্বর ও দ্বিতীয় দফার জন্য ১০ নভেম্বর নির্বাচনের বিজ্ঞপ্তি জারি হবে। তারপর থেকেই রাজনৈতিক দলগুলি নিজেদের কাজ শুরু করতে পারবে। ৫০% বুথে ওয়েবকাস্টিং-র সুবিধা থাকবে। ১২৪৭টি পোলিং স্টেশন সম্পূর্ণ মহিলা দ্বারা পরিচালিত হবে। যেসব প্রার্থীদের বিরুদ্ধে ফৌজদারী মামলা থাকবে তাঁদেরকে অন্তত সোশ্যাল মিডিয়াতে মামলার কারণ ভোটারদের জানাতে হবে। আর নির্বাচনের সময় কোস্টগার্ডরা যাতে উপকূল বরাবর বিশেষ নজরদারি বজায় রাখে সেদিকে নজর রাখতে হবে।

গুজরাটের মধ্যে আমেদাবাদে ভোটার সংখ্যা সব থেকে বেশি। প্রায় ৬০ লক্ষ। আর ডাংস জেলার ভোটার সংখ্যা ১ লক্ষ ৯৩ হাজার। যা সব থেকে কম। গ্রামকেন্দ্রিক আসন সংখ্যা ১৪০টি ও শহর কেন্দ্রিক আসন সংখ্যা ৪২টি। গুজরাটে হিন্দু ভোট ৮৮.৫৭%, মুসলিম ভোট ৯.৬৭%, জৈন ভোট ০.১%।

গুজরাটে শেষ বিধানসভা নির্বাচন হয়েছিল ২০১৭ সালের ডিসেম্বর মাসে। ১৮২টি আসনের মধ্যে বিজেপি পেয়েছিল ১১১টি আসন। অন্যদিকে ইউপিএ জোট পেয়েছিল ৬৬টি আসন। যার মধ্যে ৬২টি আসনে জিতেছিল কংগ্রেস। বিটিপি (ভারতীয় ট্রাইবল পার্টি) ২, এনসিপি (ন্যাশনালিস্ট কংগেরস পার্টি) ১ ও নির্দল পেয়েছিল ১টি আসন।

এই বছরের শেষের দিকে হিমাচল প্রদেশ এবং গুজরাটে বিধানসভা নির্বাচন হওয়ার কথা ছিল। হিমাচলের নির্বাচনের তারিখ বেশ কিছুদিন আগেই ঘোষণা করা হলেও তাৎপর্যপূ্ণভাবে ঘোষণা করা হয়নি গুজরাটের ভোটের দিনক্ষণ। রবিবার তিনদিনের গুজরাট সফরে গিয়ে একাধিক প্রকল্পের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। মঙ্গলবার সেখান থেকে ফিরেছেন তিনি। এর একদিন পর বৃহস্পতিবার সেখানে ভোটের তারিখ ঘোষণা করলো নির্বাচন কমিশন। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, মোদীর গুজরাট সফরের জন্যই নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা স্থগিত রেখেছিল কমিশন।

১, ৫ ডিসেম্বর গুজরাটে ভোট ঘোষণা নির্বাচন কমিশনের
গুজরাটে বিধানসভা নির্বাচনের আগে বড় ধাক্কা BJP শিবিরে, কংগ্রেসে যোগ প্রাক্তন সাংসদের

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in