গত জুলাই মাসে ইন্ডিয়া মঞ্চের বৈঠক
গত জুলাই মাসে ইন্ডিয়া মঞ্চের বৈঠকছবি সংগৃহীত

INDIA: ‘ইন্ডিয়া’ শিবিরের প্রথম জনসভা ভোপালে, জাতিগত জনগণনা হবে বিরোধীদের হাতিয়ার

People's Reporter: ইন্ডিয়া শিবিরের তরফে জাতিগত জনগণনাকেই বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে প্রথম হাতিয়ার করা হবে বলেও জানানো হয়েছে জোটের তরফ থেকে।

আগামী অক্টোবরেই হবে ইন্ডিয়া শিবিরের প্রথম জনসভা। মধ্যপ্রদেশের বিধানসভা নির্বাচনের ঠিক আগে ভোপালেই প্রথমবার সম্মিলিতভাবে জনসমক্ষে সভা করবে বিজেপি বিরোধী মহাজোট। বুধবার জোটের সমন্বয় কমিটির প্রথম বৈঠকে এমনটাই ঠিক হয়েছে। পাশাপাশি, সেই প্রচারে ইন্ডিয়া শিবিরের তরফে জাতিগত জনগণনাকেই বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে প্রধান হাতিয়ার করা হবে বলেও জানা গেছে। কংগ্রেসের জাতীয় সাধারণ সম্পাদক কেসি ভেনুগোপাল জানিয়েছেন, “এই জাতিগত জনগণনাই বিজেপির হিন্দুত্ববাদী রাজনীতির বিরুদ্ধে আমাদের অন্যতম অস্ত্র হবে।”

বুধবার রাজধানীতে নয়াদিল্লিতে ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টির প্রধান শরদ পাওয়ারের বাসভবনে বিজেপি বিরোধী ইন্ডিয়া শিবিরের সমন্বয় কমিটির প্রথম বৈঠক হল। কংগ্রেসের কেসি ভেনুগোপাল, সিপিআইয়ের ডি রাজা, আরজেডির তেজস্বী যাদব, শিবসেনার (উদ্ভব গোষ্ঠী) সঞ্জয় রাউত-সহ মোট ১২টি দলের প্রতিনিধিরা এদিনের বৈঠকে যোগ দেন। তবে তৃণমূল কংগ্রেসের অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এদিনের বৈঠকে যোগ দিতে পারেননি। প্রাথমিক নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় তাঁকে ইডির দপ্তরে হাজিরা দিতে হয়েছিল।

এদিনের বৈঠকের পর কেসি ভেনুগোপাল সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে প্রেস বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছেন, “আগামী অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহেই মধ্যপ্রদেশের ভোপালে প্রথম সম্মিলিত জনসভা করবে ইন্ডিয়া শিবিরের শরীক দলগুলি। সেই জনসভা থেকেই চলতি বছরের শেষে ৫ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন ও ২০২৪-এর লোকসভা নির্বাচনের প্রচার শুরু করা হবে। প্রাথমিকভাবে ভোপালের জনসভা থেকে জাতিগত জনগণনাকেই বিজেপি হিন্দুত্ববাদী রাজনীতির বিরুদ্ধে প্রধান হাতিয়ার করা হবে।” ভেনুগোপাল আরও জানিয়েছেন, “ইন্ডিয়া শিবির দেশের প্রতিটি কোনায় যৌথ সভা-সমাবেশ করবে। সেই সভাগুলি থেকে মূল্যবৃদ্ধি, বেকারত্ব এবং ভারতীয় জনতা পার্টির দুর্নীতিকে তুলে ধরা হবে।”

পাশাপাশি, জোটের সমস্ত দলের উপস্থিতিতে আসন্ন ৫ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে আসন ভাগাভাগি নিয়েও খুব শিগগিরি আলোচনা হবে বলে জানানো হয়েছে। ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে দেশের প্রতিটি আসনে বিজেপি প্রার্থীর বিরুদ্ধে গোটা ইন্ডিয়া শিবিরের তরফে একজন করে প্রার্থীকে দাঁড় করানোর ইঙ্গিত দিয়ে ন্যাশনাল কনফারেন্স নেতা ওমর আবদুল্লা জানিয়েছেন, “যে কেন্দ্রগুলি ইতিমধ্যেই ইন্ডিয়া শিবিরের সদস্য দলগুলির দখলে রয়েছে, সেগুলি নিয়ে আর বিশেষ আলোচনার প্রয়োজন নেই। কিন্তু যে আসনগুলি বিজেপি, এনডিএ বা ইন্ডিয়া শিবিরের সদস্য নয় এমন দলের দখলে রয়েছে, সেই কেন্দ্রগুলিতে ইন্ডিয়া শিবিরের পক্ষ থেকে একজন করে প্রার্থীকেই দাঁড় করানো হবে।”

GOOGLE NEWS-এ Telegram-এ আমাদের ফলো করুন। YouTube -এ আমাদের চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন।

Related Stories

No stories found.
logo
People's Reporter
www.peoplesreporter.in