Covid-19: দৈনিক সংক্রমণে বিশ্বে প্রথম স্থানে উঠে এলো ভারত, রেকর্ড মৃত্যু সংখ্যাতেও

বাড়তে বাড়তে ৩ লাখ ছাড়িয়ে গেছে দেশে দৈনিক সংক্রমণ। বিশ্বের আর কোনো দেশে দৈনিক সংক্রমণ এই পর্যায়ে পৌঁছায়নি।
Covid-19: দৈনিক সংক্রমণে বিশ্বে প্রথম স্থানে উঠে এলো ভারত, রেকর্ড মৃত্যু সংখ্যাতেও
ছবি প্রতীকী সংগৃহীত

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে একেবারে বিধ্বস্ত ভারত। দৈনিক সংক্রমণ ও মৃত্যুর রেকর্ড তৈরি হচ্ছে দেশে। বাড়তে বাড়তে ৩ লাখ ছাড়িয়ে গেছে দেশে দৈনিক সংক্রমণ। বিশ্বের আর কোনো দেশে দৈনিক সংক্রমণ এই পর্যায়ে পৌঁছায়নি। শেষ ২৪ ঘন্টায় রেকর্ড সংখ্যক মৃত্যুও হয়েছে দেশে। পরিস্থিতি ক্রমশ ভয়াবহ থেকে আরো ভয়াবহ হয়ে উঠছে।

বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, শেষ ২৪ ঘন্টায় দেশে করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ৩ লক্ষ ১৪ হাজার ৮৩৫ জন, গোটা বিশ্বের মধ্যে সর্বাধিক দৈনিক সংক্রমণ এটা। গতকাল এই সংখ্যাটা ছিল ২.৯৫ লক্ষ। আজকের পরিসংখ্যান নিয়ে দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১ কোটি ৫৯ লক্ষ ৩০ হাজার ৯৬৫। ২৪ ঘন্টায় দেশে মারা গেছেন ২ হাজার ১০৪ জন, এই প্রথম একদিনে দেশে এতজনের মৃত্যু হলো কোভিড সংক্রমণে। গতকাল ২ হাজার ২৩ জনের মৃত্যু হয়েছিল। এখনও পর্যন্ত দেশে কোভিডে মোট মৃত্যু হয়েছে ১ লক্ষ ৮৪ হাজার ৬৫৭ জনের। ২৪ ঘন্টায় সক্রিয় কেস প্রায় ১.৩৪ লক্ষ বেড়ে দেশে মোট সক্রিয় কেসের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২২ লক্ষ ৯১ হাজার ৪২৮। ২৪ ঘন্টায় সংক্রমণ মুক্ত হয়েছেন প্রায় ১.৭৯ লক্ষ।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ সবথেকে বেশি প্রভাব ফেলেছে মহারাষ্ট্রে, যা সামলাতে কার্যত দিশেহারা প্রশাসন। একদিনে সেখানে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৬৭ হাজার ৪৬৮ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৫৬৮ জনের। রাজ্যে মোট আক্রান্ত ৪০ লক্ষ ২৭ হাজার ৮২৭, যার মধ্যে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৬.৯৭ লক্ষ, গোটা দেশের মধ্যে সর্বাধিক। করোনার কারণে রাজ্যে মোট মৃত্যু হয়েছে ৬১ হাজার ৯১১ জনের। মহারাষ্ট্রের পরেই সবথেকে খারাপ অবস্থা উত্তরপ্রদেশের। ২৪ ঘন্টায় সেখানে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৩৩ হাজার ১০৬ এবং মৃত্যু হয়েছে ১৮৭ জনের। এখানে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ২.৪২ লক্ষ। এরপরই রয়েছে দিল্লি। দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যার বিচারে সর্বাধিক ক্ষতিগ্রস্ত শহরের তালিকায় মুম্বাইকেও ছাড়িয়ে গেছে দিল্লি। শেষ ২৪ ঘন্টায় সেখানে আক্রান্ত হয়েছেন ২৪ হাজার ৬৩৮ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ২৪৯ জনের। পরিস্থিতি এতটাই ভয়াবহ যে হাসপাতালে আর বেড পাওয়া যাচ্ছে না।

অক্সিজেনের অভাবে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছে শহরের কয়েকটি বড় হাসপাতাল। এই তিনটি রাজ‍্য ছাড়াও কর্ণাটক, কেরল, ছত্তিশগড়, তামিলনাড়ু, মধ্যপ্রদেশ, গুজরাট, রাজস্থান - এই সাতটি রাজ্যের পরিস্থিতিও অত‍্যন্ত উদ্বেগজনক। এই সাতটি রাজ্যে দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা যথাক্রমে ২৩,৫৫৮, ২২,৪১৪, ১৪,৫১৮, ১১,৬৮১, ১৩,১০৭, ১২,৫৫৩, ১৪,৬২২।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in