COVID-19: দৈনিক মৃত্যু সংখ্যা বেড়ে ৯১১, দেশে সক্রিয় কেস এখনও সাড়ে ৪ লাখের বেশি

মণিপুর, মেঘালয়, ত্রিপুরা, অরুনাচল প্রদেশ, মিজোরাম, সিকিম, ওড়িশা এবং আসামে দৈনিক সংক্রমণ উদ্বেগজনক।
COVID-19: দৈনিক মৃত্যু সংখ্যা বেড়ে ৯১১, দেশে সক্রিয় কেস এখনও সাড়ে ৪ লাখের বেশি
ফাইল ছবি

দেশে কিছুটা কমলো দৈনিক সংক্রমণ। তবে গতকালের তুলনায় করোনায় মৃত্যু সংখ্যা বাড়লো আজ। দৈনিক সংক্রমণে দিক দিয়ে উদ্বেগ বাড়াচ্ছে কেরল। দৈনিক মৃত্যুতে শীর্ষে রয়েছে মহারাষ্ট্র। সংক্রমণ বাড়ছে উত্তর-পূর্বের রাজ‍্যগুলিতে।

শুক্রবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের প্রকাশিত পরিসংখ্যান অনুযায়ী, শেষ ২৪ ঘন্টায় দেশে করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ৪৩ হাজার ৩৯৩ জন, গতকাল আক্রান্ত হয়েছিলেন প্রায় ৪৬ হাজার মানুষ। আজকের পরিসংখ্যান নিয়ে দেশে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩ কোটি ৭ লক্ষ ৫২ হাজার ৯৫০।

২৪ ঘন্টায় দেশে মারা গেছেন ৯১১ জন, গতকাল এই সংখ্যাটা ছিল ৮১৭। এখনও পর্যন্ত দেশে কোভিডে মোট মৃত্যু হয়েছে ৪ লক্ষ ৫ হাজার ৯৩৯ জনের। এই মুহূর্তে দেশে মোট সক্রিয় কেস ৪ লক্ষ ৫৮ হাজার ৭২৭, যা গতকালের চেয়ে ২ হাজার কম। একদিনে সুস্থ হয়েছেন প্রায় ৪৪ হাজার রোগী। মোট সুস্থ ২ কোটি ৯৮ লক্ষ ৮৮ হাজার ২৮৪।

২৪ ঘন্টায় সবথেকে বেশি আক্রান্ত ধরা পড়েছে কেরলে। একদিনে সেখানে আক্রান্ত হয়েছেন ১৩ হাজার ৭৭২ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ১৪২ জনের। এই মুহূর্তে সেখানে মোট সক্রিয় কেস ১.১০ লক্ষ, যা গতকালের তুলনায় প্রায় ২ হাজার বেশি।

মহারাষ্ট্রে দৈনিক সংক্রমণের গ্রাফ ফের ঊর্ধ্বমুখী। ২৪ ঘন্টায় সেখানে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৯ হাজার ৮৩ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৪৩৯ জনের। দেশের মধ্যে সর্বাধিক সক্রিয় রোগী এখানেই, ১.১৭ লক্ষ। করোনার কারণে রাজ্যে মোট মৃত্যু হয়েছে ১ লক্ষ ২৪ হাজার ২৯৬ জনের।

তামিলনাড়ুতে একদিনে ৩ হাজার ২১১ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন এবং মৃত্যু হয়েছে ৫৭ জনের। রাজ‍্যে সক্রিয় কেস প্রায় ৩৩ হাজার।

অন্ধ্রপ্রদেশে ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত হয়েছেন ২ হাজার ৯৮২ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ২৭ জনের। এখানে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা প্রায় ৩২ হাজার।

এছাড়াও মণিপুর, মেঘালয়, ত্রিপুরা, অরুনাচল প্রদেশ, মিজোরাম, সিকিম, ওড়িশা এবং আসামে দৈনিক সংক্রমণ উদ্বেগজনক।

দেশে এখনও পর্যন্ত মোট টিকাকরণ হয়েছে ৩৬ কোটি ৮৯ লক্ষ ৯১ হাজার ২২২ জনের। শেষ ২৪ ঘন্টায় টিকাকরণ হয়েছে মাত্র ৪০ লক্ষ ২৩ হাজার ১৭৩ জনের, গতকাল হয়েছিল ৩৩.৮১ লক্ষ।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in