WHO-র নির্দেশিকা ছাড়াই টিকাকরণের বয়ঃসীমা বাড়িয়ে দিয়েছে কেন্দ্র, অভিযোগ সেরাম ইনস্টিটিউট -এর

প্রাথমিকভাবে ৩০ লাখ মানুষের জন্য ৬০ লাখ ভ্যাকসিনের ডোজ প্রয়োজন ছিল। কিন্তু লক্ষ্যে পৌঁছনোর আগেই সরকার ১৮ থেকে ৪৪ বছরের মধ্যে সকলের জন্য ভ্যাকসিনের কথা ঘোষণা করে দেয়।
WHO-র নির্দেশিকা ছাড়াই টিকাকরণের বয়ঃসীমা বাড়িয়ে দিয়েছে কেন্দ্র, অভিযোগ সেরাম ইনস্টিটিউট -এর
ছবি- Adar Poonawalla website

দেশে ভ্যাকসিনের ঘাটতির মধ্যেই কেন্দ্র ১৮ থেকে ৪৪ বছরের বয়ঃসীমার মধ্যে ভ্যাকসিন দেওয়ার কথা ঘোষণা করে দিয়েছে। এনমকী, এই বিষয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশিকাও উপেক্ষা করা হয়েছে বলে শুক্রবার অভিযোগ করেছেন পুণের সেরাম ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়ার এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর সুরেশ যাদব।

হিল হেলথ নামক একটি সম্মেলনে কথা বলতে গিয়ে কেন্দ্রকে একহাত নিয়ে যাদব বলেন, দেশের উচিত হু-র নির্দেশিকা মেনে চলা এবং গুরুত্ব বুঝে ভ্যাকসিন প্রক্রিয়া পরিচালনা করা। প্রাথমিকভাবে ৩০ লাখ মানুষের জন্য ৬০ লাখ ভ্যাকসিনের ডোজ প্রয়োজন ছিল। কিন্তু লক্ষ্যে পৌঁছনোর আগেই সরকার ১৮ থেকে ৪৪ বছরের মধ্যে সকলের জন্য ভ্যাকসিনের কথা ঘোষণা করে দেয়।

পর্যাপ্ত ভ্যাকসিনের জোগান নেই, তা জানা সত্ত্বেও এমনটা করেছে কেন্দ্র। আর সেই জন্যই আজ ভ্যাকসিনের সংকটে ভুগতে হচ্ছে। যাদব উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছেন, ভ্যাকসিন নেওয়া খুবই দরকার, কিন্তু ভ্যাকসিন নেওয়ার পরেও সংক্রমণ হচ্ছে। এই কারণে, মানুষকে আরও বেশি সচেতন থাকতে হবে। কোভিডবিধি মেনে চলতে হবে।

দেশে ভাইরাস নানা রূপে আসতে শুরু করেছে। যার ফলে ভ্যাকসিন প্রক্রিয়াতেও সমস্যা সৃষ্টি হচ্ছে। লাইসেন্সপ্রাপ্ত যে কোনও ভ্যাকসিন নিয়ে নেওয়ার পরামর্শ দেন তিনি। তবে যাদব আরও বলেন, এখনই বলা যাচ্ছে না, কোন ভ্যাকসিন ভাইরাসের উপর কার্যকরী আর কোনটা নয়।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in