আদানির বন্দরে মাদক উদ্ধার, কৃষক হত্যা থেকে নজর ঘোরাতেই শাহরুখ পুত্রকে নিশানা: বিশাল দাদলানি

তিনি লেখেন, 'আদানিদের বন্দরে ৩ হাজার কেজি তালিবানি-মাদক মিলেছে। তা থেকে নজর ঘোরাতে তাঁদের সহজ নিশানা করা হয়েছে।
আদানির বন্দরে মাদক উদ্ধার, কৃষক হত্যা থেকে নজর ঘোরাতেই শাহরুখ পুত্রকে নিশানা: বিশাল দাদলানি
ফাইল চিত্র

মাদক মামলার সঙ্গে আরিয়ান খানের জড়িয়ে পড়ার ঘটনায় অনেক রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব স্টার পুত্রের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন। এবার এই ঘটনায় শাহরুখ খান ও তাঁর ছেলের পাশে দাঁড়ালে বলিউডের প্রখ্যাত সঙ্গীত পরিচালক বিশাল দাদলানি। তাঁর বিস্ফোরক অভিযোগ, গৌতম আদানির সংস্থার মুন্দ্রা বন্দরে ৩ হাজার কেজি মাদক উদ্ধার হয়েছে। আবার উত্তরপ্রদেশে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর নেতার ছেলের গাড়ি চাপা দিয়ে কৃষক হত্যা করেছে। এসব ঘটনা থেকে সবার নজর ঘোরাতে আরিয়ানকে নিশানা করা হয়েছে।

প্রমোদতরীর রেভ পার্টিতে শাহরুখ খানের ছেলে আরিয়ান খান-সহ আরও বেশ কয়েকজন ধরা পড়ে এনসিবির হাতে। তাদের গ্রেফতার করা হয়। এরপর থেকেই এই ঘটনায় সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি টুইট ঘোরাফেরা করে। টুইটে প্রশ্ন তোলা হয়, এত বছর ধরে এসআরকে যাদের সঙ্গে কাজ করলেন, তাদের কজন আজ এই অসময়ে তাঁর পাশে আছেন। সেই টুইটকে রিটুইট করে সঙ্গীত পরিচালক দাদলানি লিখেছেন, ‘সঙ্গীত পরিচালকদের কথা বললে, আমি আছি। শাহরুখ এবং তাঁর পরিবারকে বলির পাঁঠা করা হয়েছে।'

এরপরই তিনি বিস্ফোরক বক্তব্য লেখেন, 'আদানিদের বন্দরে ৩ হাজার কেজি তালিবানি-মাদক মিলেছে। তা থেকে নজর ঘোরাতে তাঁদের সহজ নিশানা করা হয়েছে। বিজেপি নেতার ছেলের হাতে কৃষকদের মৃত্যুর ঘটনার প্রতিবাদে আন্দোলন থেকে দৃষ্টি সরাতেও যে এই মামলা লম্বা হচ্ছে, তা পরিষ্কার।’

বিশাল ছাড়াও মাদক-কাণ্ডে বলিউড বাদশা পাশে পেয়েছেন অভিনেতা শেখর সুমনকে। তিনি টুইট করেছেন, ‘আমার ১১ বছরের সন্তানের মৃত্যুর সময় একমাত্র শাহরুখই পাশে ছিল। আমি জানি, এরকম পরিস্থিতিতে একজন বাবার কী মানসিক অবস্থায় থাকেন।’

প্রসঙ্গত, মহারাষ্ট্রের প্রভাবশালী এনসিপি নেতা নবাব মালিক এই ঘটনায় এনসিবি-র ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। ইতিমধ্যে বলিউডের একটি অংশ প্রশ্ন তুলছে, রাজনীতির দাবা খেলায় শাহরুখ পুত্র কি তবে বোড়ে হয়ে গেলেন? এর পিছনে রাজনীতির খেলা রয়েছে বলে অভিযোগ তাঁদের। কঙ্গনা রানাওয়াত থেকে অক্ষয় কুমার প্রকাশ্যে মোদি সরকারের সমর্থক হিসাবে জাহির করেন। শাহরুখকে সেই পংক্তিতে ফেলা যায় না।

একটি ঘটনার কথা উল্লেখ করা যেতে পারে। গত ফেব্রুয়ারি মাসে কৃষক আন্দোলন নিয়ে আমেরিকার পপ তারকা রিহানা একটি টুইট করেন। সেই টুইটের সূত্র ধরে টুইট করেছিলেন কোহলী থেকে সচিন, কঙ্গনা থেকে লতা মঙ্গেশকর, অক্ষয় কুমার—সহ দেশের তাবড় তারকারা। টুইটের বিষয়বস্তু ছিল, বিদেশি হয়ে কেন ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে নাক গলাচ্ছেন রিহানা। কিন্তু সেই তালিকায় ছিলেন না শাহরুখ।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.