বৈধ উপায়ে মাদক বাজেয়াপ্ত করেনি, বেআইনি পথ অবলম্বন করেছে NCB, চাঞ্চল্যকর মন্তব্য আদালতের

গত ২ অক্টোবর মাদক সেবনের অভিযোগে গ্রেফতার করা হয় শাহরুখ খানের ছেলে আরিয়ান, নুপুর-সহ মোট ২০ জনকে। কোর্টের সাফ বক্তব্য, নারকোটিক ড্রাগস অ্যান্ড সাইকোট্রপিক সাবস্ট্যান্সেস আইন মানেনি এনসিবি।
বৈধ উপায়ে মাদক বাজেয়াপ্ত করেনি, বেআইনি পথ অবলম্বন করেছে NCB, চাঞ্চল্যকর মন্তব্য আদালতের
ফাইল চিত্র

আরিয়ান মাদক কাণ্ডে একের পর এক নতুন তথ্য উঠে আসছে। এবার আইন ভাঙার অভিযোগ উঠল খোদ নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোর বিরুদ্ধে। সংস্থার বিরুদ্ধে অভিযোগ, প্রমোদতরীর রেভ পার্টিতে অভিযান চালিয়ে তারা যে মাদক বাজেয়াপ্ত করেছে, সেই অভিযান আইনিভাবে হয়নি। অভিযুক্ত নূপুর সাতিজাকে জামিন দেওয়া হয়েছে। তারপরই এমনই চাঞ্চল্যকর মন্তব্য করল বিশেষ এনডিপিএস আদালত।

গত ২ অক্টোবর মাদক সেবনের অভিযোগে গ্রেফতার করা হয় শাহরুখ খানের ছেলে আরিয়ান, নুপুর-সহ মোট ২০ জনকে। নুপুরের কাছ থেকে মাদক উদ্ধার হয়। কোর্টের সাফ বক্তব্য, নারকোটিক ড্রাগস অ্যান্ড সাইকোট্রপিক সাবস্ট্যান্সেস আইন মানেনি এনসিবি।

এনসিবির দাবি, নূপুরের কাছ থেকে মোট চারটি এক্সট্যাসি (এক ধরনের মাদক) ট্যাবলেট পাওয়া গিয়েছে। নূপুরের আইনজীবী বলেন, তাঁর মক্কেলের কাছে সামান্য মাদক পাওয়া গিয়েছে। বিক্রির জন্য ছিল না। এনডিপিএস আইন অনুযায়ী বাজেয়াপ্ত সামগ্রীর তালিকা অর্থাৎ ‘সিজার লিস্ট’ তৈরির সময় দায়িত্বপ্রাপ্ত মহিলা অফিসারের ঘটনাস্থলে থাকা বাধ্যতামূলক। কিন্তু, নূপুরের ক্ষেত্রে তা হয়নি। সূর্যাস্তের আগে একজন পুরুষ অফিসার তাঁকে গ্রেফতার করেন।

এরপরই রায় দিতে গিয়ে বিশেষ এনডিপিএস আদালতের বিচারক ভি ভি পাতিল জানান, যে প্রক্রিয়ায় মাদক বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে, তা সম্পূর্ণ ‘বেআইনি’। কোনও মহিলা অফিসার নয়। একজন মহিলা সাক্ষী অভিযুক্তের ব্যাগ ও দেহ তল্লাশি করেছিলেন। কেউ সেসবের পঞ্চনামাও তৈরি করেননি।

বৈধ উপায়ে মাদক বাজেয়াপ্ত করেনি, বেআইনি পথ অবলম্বন করেছে NCB, চাঞ্চল্যকর মন্তব্য আদালতের
Mumbai Drug Case: মুক্তিপণের জন্য আরিয়ান খানকে ফাঁদে ফেলে অপহরণ করা হয়েছিলো - নবাব মালিক

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in