মেয়ে মাদকাসক্ত ছিলো, জানিয়েছেন বিজেপি নেত্রী পামেলা গোস্বামীর বাবা - দাবি পুলিসের
মাদক পাচার কাণ্ডে গ্রেপ্তার বিজেপি নেত্রী পামেলা গোস্বামীফাইল ছবি, পামেলা গোস্বামীর ফেসবুক পেজ থেকে সংগৃহীত

মেয়ে মাদকাসক্ত ছিলো, জানিয়েছেন বিজেপি নেত্রী পামেলা গোস্বামীর বাবা - দাবি পুলিসের

শনিবার আদালতে যাওয়ার পথে সংবাদমাধ্যমের সামনে পামেলা বলেন, কৈলাস বিজয়বর্গীয় ঘনিষ্ঠ রাকেশ সিংহ তাঁকে ফাঁসিয়েছে। ঘটনার সিআইডি তদন্তের দাবি তোলেন তিনি। পামেলার মন্তব্যে তীব্র অস্বস্তিতে গেরুয়া শিবির।

পামেলা মাদকাসক্ত। তিনি ও তার বন্ধু প্রবীর কুমার দে কয়েকদিন ধরে একসঙ্গে থাকছিলেন। বন্ধুর প্রভাবেই সে মাদকাসক্ত হয়ে পড়ে। মাদক পাচারের অভিযোগে ধৃত বিজেপি যুবমোর্চার নেত্রী পামেলা গোস্বামীর বাবা পুলিশের কাছে এমনটাই জানিয়েছেন বলে দাবি পুলিশের। তাকে নজরদারিতে রাখার দাবিও জানান তিনি। বিজেপি নেত্রীকে আগামী ২৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত পুলিশ হেফাজতে পাঠানো হয়েছে।

উল্লেখ্য, গতকালই এই ঘটনায় দলীয় নেতার বিরুদ্ধেই আঙুল তুলেছিলেন মাদক মামলায় ধৃত বিজেপির যুব মোর্চার নেত্রী পামেলা গোস্বামী। শনিবার আদালতে যাওয়ার পথে সংবাদমাধ্যমের সামনে পামেলা দাবি করেন, কৈলাস বিজয়বর্গীয় ঘনিষ্ঠ রাকেশ সিংহ তাঁকে ফাঁসিয়েছে। এই ঘটনার সিআইডি তদন্তের দাবিও তুলেছেন তিনি। পামেলার এই মন্তব্যে তীব্র অস্বস্তিতে গেরুয়া শিবির।

শুক্রবার বিকেলে বিজেপি যুব মোর্চার সম্পাদক এবং বিজেপি যুব মোর্চা হুগলী জেলার পর্যবেক্ষক পামেলা গোস্বামীকে ১০০ গ্রাম কোকেন সহ গ্রেফতার করে নিউ আলিপুর থানার পুলিশ। তাঁর সঙ্গী বিজেপি নেতা প্রবীর দে, তাঁর রক্ষী ও গাড়ির চালককেও গ্রেফতার করা হয়। পুলিশ জানিয়েছে, পামেলাকে মাদক সরবরাহ করতেন প্রবীর।

শনিবার পামেলা সহ বাকি ৩ জনকে আলিপুর আদালতে পেশ করা হয়। আদালতে নিয়ে যাওয়ার সময় সংবাদমাধ্যমকে দেখেই চেঁচিয়ে ওঠেন পামেলা। দাবি করেন, "রাজনৈতিক কারণে আমাকে ফাঁসানো হয়েছে। আমি চাই সিআইডি তদন্ত হোক এই ঘটনার। কৈলাস বিজয়বর্গীয় ঘনিষ্ঠ রাকেশ সিংহ যেন গ্রেফতার হয়। আমার বিরুদ্ধে চক্রান্ত হয়েছে।"

যদিও পামেলার এই মন্তব্যে পাল্টা চক্রান্তের অভিযোগ তুলেছেন রাকেশ সিংহ। তিনি বলেন, "আমি জড়িত থাকলে আমাকে ডাকুক পুলিশ। নতুন ষড়যন্ত্র মনে হচ্ছে। কলকাতা পুলিশ জোর করে এইসব বলাচ্ছে না তো?" তিনি আরও যোগ করেন, 'এগুলি ভিত্তিহীন অভিযোগ এবং আমি যে কোনও চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে প্রস্তুত।'

প্রসঙ্গত, পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, কলকাতায় বসেই লক্ষ লক্ষ টাকার মাদক পাচারের ব‍্যবসা করতেন পামেলা গোস্বামী, যিনি মাত্র কয়েক বছরেই বিজেপি-র অন্দরে অত‍্যন্ত 'জনপ্রিয়' হয়ে উঠেছিলেন। বেশ কয়েকদিন ধরেই তাঁর ওপর নজর রাখছিল পুলিশ।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in