কৃষকদের বিরুদ্ধে অবমাননাকর মন্তব্য, ফের আইনি নোটিস পেলেন কঙ্গনা

কৃষকদের বিরুদ্ধে অবমাননাকর মন্তব্য, ফের আইনি নোটিস পেলেন কঙ্গনা
কঙ্গনা রানাওয়াত ফাইল ছবি সংগৃহীত

কৃষক আন্দোলন নিয়ে বিতর্কিত টুইটের পর থেকে কঙ্গনা রানাওয়াতকে পড়তে হয়েছে কড়া সমালোচনার মুখে। এবার দিল্লি শিখ গুরুদ্বার ম্যানেজমেন্ট কমিটির এক সদস্য আইনি নোটিস পাঠালেন তাঁকে। পাশাপাশি কঙ্গনার টুইটার অ্যাকাউন্ট উড়িয়ে দেওয়ার দাবিতে জমা পড়েছে পিটিশনও।

বিতর্কের সূত্রপাত কৃষক আন্দোলনে যোগ দেওয়া এক বৃদ্ধাকে ‘শাহিনবাগের দাদি’ বিলকিস বানোর সঙ্গে গুলিয়ে ফেলা ও তাঁর সম্পর্কে বিরূপ মন্তব্য করার পরই। কঙ্গনা কটাক্ষ করে লিখেছিলেন,'এঁকে তো ১০০ টাকার বিনিময়েই পাওয়া যায়।' এরপর থেকেই নেটিজেনদের অনেকেই ফুঁসে ওঠেন কঙ্গনার বিরুদ্ধে। যে মহিলাকে কঙ্গনা বিলকিস বানো বলে ভুল করেছিলেন, তাঁর আসল নাম মহিন্দর কাউর। তিনিও ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন অভিনেত্রীর বিরুদ্ধে। বুধবার সেই দলে যোগ দেন পাঞ্জাবী গায়ক দিলজিৎও।

এদিকে আগেই তাঁকে আইনি নোটিস পাঠিয়েছিলেন আইনজীবী হরকম সিং। এবার নোটিস পাঠালেন শিখ গুরুদ্বার ম্যানেজমেন্ট কমিটির এক সদস্যও। তাঁর ‘ভ্যারিফায়েড’ টুইটার অ্যাকাউন্টটি মুছে ফেলার দাবিতে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় জমা পড়ে পিটিশন। অভিযোগ, এরই মাধ্যমে লাগাতার ঘৃণা ও বিদ্বেষ ছড়াচ্ছেন অভিনেত্রী। পিটিশনটির উত্তরে কঙ্গনা জানিয়েছেন, মতামত জানানোর জন্য টুইটারই তাঁর একমাত্র প্ল্যাটফর্ম নয়।

এদিকে, দিলজিতের পাশে দাঁড়িয়েছেন, বক্সার বিজেন্দর সিং, গায়ক ও সুরকার মিকা সিংয়ের মতো তারকারাও। মিকা টুইট করে লেখেন, কঙ্গনার অফিস ভাঙার সময় তিনি বলিউড অভিনেত্রীর পাশে দাঁড়িয়েছিলেন। কিন্তু এখন তাঁর মনে হচ্ছে তিনি ভুল করেছেন। একজন মহিলা হয়েও যেভাবে এক বৃদ্ধাকে অপমান করেছেন সেজন্য তাঁর ক্ষমা চাওয়া উচিত। তিনি লেখেন, 'শেম অন ইউ।'

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in