ভোট কাহিনী – সম্পাদক লিখছেন
ছবি প্রতীকী সংগৃহীত

ভোট কাহিনী – সম্পাদক লিখছেন

আরও একবার। পৃথিবীর বৃহত্তম গণতন্ত্রের নির্লজ্জতম প্রহসনের সাক্ষী রইলো পশ্চিমবঙ্গ। নোয়াপাড়া ও উলুবেড়িয়ার উপনির্বাচন আরও একবার চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিলো – পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচনে ‘মানুষ’ এখন আর কোনও ফ্যাক্টর নয়।

নিতান্তই ‘মাটি’র বস্তু। ‘মা’-এর নাম করে মাসল এবং মানির খেলাই সেখানে আসল। যে ছবি বারবার ধরা পড়ছে পশ্চিমবঙ্গের একাধিক নির্বাচনে। তা সে বিধাননগর হোক বা বিধানসভা।

‘ভূলুণ্ঠিত গণতন্ত্র’, ‘গণতন্ত্রের কণ্ঠরোধ’ গোছের ভারী ভারী কিছু শব্দ ব্যবহার করা যেতেই পারে। আদপে দিনের শেষে একরাশ হতাশা ছাড়া তাতে অবস্থার কোনও পরিবর্তন হয় না। এই আপাত সরল সত্য যত তাড়াতাড়ি উপলব্ধি করা যায় ততই মঙ্গল।

একটা সামান্য উপনির্বাচন, যার ফলাফলে রাজ্যের রাজনৈতিক পট পরিবর্তনের কোনও সম্ভাবনাই নেই, সেই রকমের ‘দুধভাত’ একটা ভোটের আগের রাতে কেন বিরোধী দলের প্রার্থীকে দলীয় সমর্থকদের পাহারা দিতে, আক্রমণের হাত থেকে বাঁচাতে মহল্লায় ঘুরে বেড়াতে হবে তার উত্তর দেবার দায় বোধহয় শাসকের ওপরেই বর্তায়। নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকা সত্ত্বেও কী কারণে বিরোধী দলের সমর্থকদের বাড়ি ভাঙচুর করতে হয় তার জবাবও। ঠিক কোন আতঙ্ক থেকে নিজের দলের ভোটারদের ভোট দানের অধিকারও কেড়ে নিতে হয় তার উত্তরও তো তাঁদেরই দিতে হবে। তবে কী ‘উন্নয়ন’ এবং ‘অনুপ্রেরণা’র নামে যা যা গেলানো হচ্ছে তার সবই ভাঁওতা? তাই যেন তেন প্রকারেণ প্রশাসনকে পকেটে পুরে জয় নিশ্চিত করার খেলা? প্রশাসন তো শাসক-বিরোধী সকলেরই। তারাই বা কেন অতি নিস্ক্রিয়?

অন্যান্যবারের মত গতকালও মানুষ মানুষের মত করে প্রতিরোধ করেছেন। বলা ভালো প্রতিরোধের চেষ্টা করেছেন। এর আগেও করেছেন। আগামীতেও করবেন। কিন্তু ‘পথের শেষ কোথায়?’ সেই পথ খুঁজবে কে? কারা? বেড়ালের গলায় ঘণ্টা বাঁধা কি শুধু গল্পের বইয়ের পাতাতেই আটকে থাকবে? নাকি…

এই ভোটের ফল বেরোনোর পরেও বিজয় মিছিল হবে। আবির উড়বে। ফিস্টি হবে। ফোয়ারা ছুটবে। আর নিস্ফল আক্রোশে কিছু মানুষ হয়তো হাত মুঠো করে আকাশের দিকে তাকিয়ে সূর্য খুঁজবে। বিশ্বাসী মানুষজন বলে থাকেন, ‘ভগবান যা করেন মঙ্গলের জন্যই করেন’। এক্ষেত্রে কি তবে শাসক নিশ্চিত হয়ে গেছেন যে জনসমর্থন আর অবশিষ্ট নেই? অতএব বিরোধীদের গলা চেপে ধরাতেই একমাত্র ‘মঙ্গল’?

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in