T-20 World Cup: জস বাটলার-এর তান্ডবে ইংল্যান্ডের কাছে ৮ উইকেটে হার অস্ট্রেলিয়ার
জয়ের পর ইংল্যান্ডছবি টি-২০ ওয়ার্ল্ড কাপ ট্যুইটার হ্যান্ডেলের সৌজন্যে

T-20 World Cup: জস বাটলার-এর তান্ডবে ইংল্যান্ডের কাছে ৮ উইকেটে হার অস্ট্রেলিয়ার

অজি বোলারদের শাসন করে ৫০ বল হাতে রেখেই ৮ উইকেটে জয় তুলে নিয়েছে ইংল্যান্ড। সুপার ১২-তে টানা তৃতীয় ম্যাচ জিতে সেমিফাইনালের দিকে এক পা বাড়িয়েই রাখলেন মর্গ্যানরা।

দুবাইয়ে ব্যাট হাতে তান্ডব চালালেন জস বাটলার। ৫ টি বাউন্ডারি এবং ৫ টি বিশাল ওভার বাউন্ডারির মাধ্যমে মাত্র ৩২ বলে অপরাজিত ৭১* রানের দুর্ধর্ষ ইনিংস খেললেন এই ইংলিশ উইকেট কিপার ব্যাটার। অজি বোলারদের শাসন করে ৫০ বল হাতে রেখেই ৮ উইকেটে জয় তুলে নিয়েছে ইংল্যান্ড। সুপার ১২-তে টানা তৃতীয় ম্যাচ জিতে সেমিফাইনালের দিকে এক পা বাড়িয়েই রাখলেন মর্গ্যানরা। অন্যদিকে টানা দুই ম্যাচ জয়ের পর তৃতীয় ম্যাচে ব্রিটিশদের কাছে টুর্নামেন্টে প্রথম হারের মুখ দেখলো ফিঞ্চ বাহিনী।

অস্ট্রেলিয়াকে শনিবার মাত্র ১২৫ রানেই অল আউট করে দেয় ব্রিটিশরা। সহজ লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শুরু থেকেই হাত খুলে খেলতে থাকেন দুই ইংলিশ ওপেনার জেশন রয় এবং জস বাটলার। ওপেনিং জুটি প্রথম উইকেটে যোগ করেন ৬৬ রান। জেশন রয়কে ২২ রানের মাথায় ফেরান অ্যাডাম জাম্পা। ডেভিড মালান ফিরে যান ৮ রানে।

তবে তাতে বিশেষ অসুবিধার মধ্যে পড়তে হয়নি থ্রি লায়ন্সদের। কারণ জস বাটলার অজি বোলারদের পাত্তাই দেননি। মাত্র ২৫ বলেই চলতি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দ্রুততম অর্ধশতরান পূর্ণ করেন তিনি। মাত্র ৩২ বলে ৭১* রানে অপরাজিত থেকে দলকে সহজ জয় এনে দিয়েছেন বাটলার। মালানের উইকেট পতনের পর ব্যাট করতে নেমে জনি বেয়ারিস্টো ২ টি ওভার বাউন্ডারির মাধ্যমে ১১ বলে ১৬* রানে অপরাজিত থাকেন।

দুবাইয়ে টসে জিতে অস্ট্রেলিয়াকে প্রথমে ব্যাট করতে পাঠিয়ে শুরুতেই বড় ধাক্কা দেয় ইংল্যান্ড। মাত্র ২১ রানেই ৪ উইকেট হারিয়ে খাদে পড়ে যায় অস্ট্রেলিয়া। ডেভিড ওয়ার্নার (১), স্টিভ স্মিথ (১), গ্লেন ম্যাক্সওয়েল (৬), মার্কাস স্টয়নিসরা (০) দাঁড়াতেই পারেননি। ম্যাথু ওয়েডও ১৮ রান করে ফিরে যান। একা দাঁড়িয়েছিলেন অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ।

অ্যাস্টন আগরকে সঙ্গে নিয়ে অজিদের রানের ঘোড়াকে সম্মানজনক জায়গায় নিয়ে যেতে চেয়েছিলেন তিনি। ৩৬ বলে ৪৭ রানের এই জুটি ভাঙে ম্যাচের ১৮ তম ওভারে। অস্ট্রেলিয়ার স্কোর যখন ৯৮ রানের মাথায় তখন ২০ রান করে ফিরে যান আগর। ১৯ তম ওভারের প্রথম বলেই ৪৯ বলে ৪৪ রানের মন্থর অথচ গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস খেলে আউট হয়ে যান অধিনায়ক ফিঞ্চ। শেষ পর্যায়ে প্যাট কামিন্সের ৩ বলে ১২ রান এবং মিচেল স্টার্কের ৬ বলে ১৩ রানের গুরুত্বপূর্ণ ইনিংসের দৌলতে সম্মানজনক জায়গায় পৌঁছায় অস্ট্রেলিয়া। নির্ধারিত ২০ ওভারে ১২৫ রানে অল আউট হয় ফিঞ্চ বাহিনী।

ইংল্যান্ডের হয়ে এদিন বল হাতে অনবদ্য প্রদর্শন করলেন ক্রিস ওকস, ক্রিস জর্ডনরা। জর্ডন তাঁর নির্ধারিত ৪ ওভারে মাত্র ১৭ রান দিয়ে তুলে নিয়েছেন ৩ টি উইকেট। ৪ ওভারে ২৩ রান খরচ করে ২ টি মহামূল্যবান উইকেট নিয়েছেন ক্রিস ওকস। এছাড়া টাইমাল মিলস নিয়েছেন জোড়া উইকেট। তবে মিলস তাঁর ৪ ওভারে রান দিয়েছেন ৪৫। ৪ ওভারে মাত্র ১৫ রানের বিনিময়ে একটি উইকেট নিয়েছেন লেইম লিভিংস্টোন এবং ৪ ওভারে মাত্র ১৯ রান দিয়ে একটি উইকেট শিকার করেছেন আদিল রাশিদ।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in