আর্সেনাল দলে তখন ভরাডুবি। মাঝপথে দলটির দায়িত্ব কাঁধে নিলো মিকেল আর্তেটা। ইপিএলে চলতি মরশুমটা ভালো কাটেনি গানার্সদের।তবে হাল ছাড়েনি আর্তেটা। চমক দেখালো এফএ কাপে।ইংলিশ এফ এ কাপে ফ্র্যাঙ্ক ল্যামপার্ডের চেলসিকে ২-১ গোলে হারিয়ে শিরোপা জিতলো আর্সেনাল।

মরশুমের শেষে ট্রফি জিতে আর্সেনাল শিবিরে খুশির জোয়ার এনে দিয়েছেন মিকেল আর্তেটা।১৯৮৬-৮৭ মরশুমের পর আর্সেনালের কোচ হিসেবে প্রথম মরশুমেই শিরোপা এনে দিলেন তিনি। এটি আর্সেনালের ১৪ তম এফএ কাপ জয়। গানার্সদের হয়ে জোড়া গোল করেছেন দলের মূল কান্ডারি পিয়েরা এমেরিক অবামেয়াং। ব্লুজদের হয়ে একটি গোল করেন ক্রিশ্চিয়ান প্যালিসিক।

এদিন পিছিয়ে থেকেও জয় ছিনিয়ে নিয়েছে অবামেয়াং, নিকোলাস পেপেরা। শুরুতেই পাঁচ মিনিটের মাথায় ক্রিশ্চিয়ান প্যালিসিকের গোলে এগিয়ে যায় ব্লুজরা। তবে প্রথমার্ধের ২৮ মিনিটে পেনাল্টি থেকে গোল করে সমতা ফেরান অবামেয়াং। প্রথমার্ধে আর কোনো গোল হয়নি।

দ্বিতীয়ার্ধে লড়াইটা বেশ জাঁকিয়ে হয়। তবে ৬৭ মিনিটের মাথায় নিকোলাস পেপের পাস থেকে ম্যাচে নিজের দ্বিতীয় গোল করেন অবামেয়াং।আর এটাই হয়ে যায় ম্যাচের ভাগ্য নির্ধারক গোল ।অবামেয়াং-এর জোড়া গোলে জয় পায় আর্তেটার দল।

ব্লুজরা শত চেষ্টা করেও দ্বিতীয়ার্ধে কিছু করতে পারেনি। ৭৩ মিনিটে ফের দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন মাতেও কোভেসিস। এরপর থেকে ১০ জন নিয়েই খেলে ব্লুজরা। কিন্তু সমতা ফেরেনি। হতাশা নিয়েই ফিরতে হলো ফ্র্যাঙ্ক ল্যামপার্ডকে।

জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন