কোস্টারিকাকে ২-০ গোলে হারিয়ে ফুটবল বিশ্বকাপ ২০১৮-এর প্রথম জয় পেল আজ ব্রাজিল। খেলার শেষ মুহূর্তে অতিরিক্ত সময়ে কোস্টারিকার গোলে নিরন্তর আক্রমণের পর কুটিনহো ও নেইমারের গোলে ব্রাজিল জয়যুক্ত হয়ে পরবর্তী রাউন্ডে যাওয়ার সম্ভাবনা উজ্জ্বল করে তুললো। তার আগে সারা খেলাজুড়ে অনেক চেষ্টা করেও কোস্টারিকার দৃঢ় রক্ষণকে ভাঙতে তারা অসমর্থ ছিল। গোটা ৯০ মিনিট ব্রাজিল ২২টা গোলের সুযোগ তৈরী করে ১০টি শট গোলে রাখলেও তার মধ্যে শেষ দুটি শটে গোল এলো।

অতিরিক্ত সময়ের প্রথম মিনিটে বক্সের মধ্যে ফিরমিনো'র বাড়ানো বল গ্যাব্রিয়েল হেসুস-এর পা হয়ে কুটিনহো'র সামনে আসলে তিনি সটান তা জালে ঢুকিয়ে ব্রাজিলকে অবশেষে এগিয়ে দেন। এরপর কোস্টারিকা রক্ষণমূলক মানসিকতা বর্জন করে খোলা গেম খেলতে শুরু করলে পাঁচ মিনিটের মধ্যে ব্রাজিল ব্যবধান দ্বিগুণ করে দেয়। বক্সের মধ্যে থেকে ডগলাস কস্টা'র ক্রস থেকে বলের সামনে থেকেই ভলি করে নেইমার ব্রাজিলের ঝুলিতে তিন পয়েন্ট নিশ্চিত করেন ও ব্রাজিল শিবিরে স্বস্তি আনেন।

তিন পয়েন্টের সঙ্গে সঙ্গে নেইমারের এই বিশ্বকাপে গোল পাওয়া খুবই গুরুত্বপূর্ণ ছিল। চোট থেকে ফিরে এসে তিনি তেমন ফর্ম বা আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে খেলছেন না। যেমন খেলে তিনি আগের বিশ্বকাপ উজ্জ্বল করে তুলেছিলেন। ব্রাজিল শিবিরে প্রত্যাশা নেইমার ক্রমে সম্পূর্ণ ফিট হয়ে উঠছেন ও এই গোল তাঁর আত্মবিশ্বাস ফিরিয়ে আনলে নক-আউট পর্বে তিনি আবার বিশ্বমানের ফুটবল উপহার দিয়ে দলকে আরো এগিয়ে নিয়ে যেতে পারবেন।

তবে আজকের খেলায় পেনাল্টি ও ভিএআর নিয়ে বিতর্ক দেখা দিয়েছে। খেলার ৭৭ মিনিটে নেইমার বক্সের মধ্যে লুটিয়ে পড়েন ও রেফারি পেনাল্টি উপহার দেন ব্রাজিলকে। কিন্তু ভিএআর-এর মাধ্যমে খেলার ফুটেজ আমার দেখে তিনি নিজের আগের সিদ্ধান্ত বদলে নেন। দেখা যায় কোস্টারিকার রক্ষকের খুব হালকা ছোঁয়াতেই নেইমার নাটকীয়তার সঙ্গে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। কিন্তু তার জন্য তাকে রেফারি হলুদ কার্ডও দেখালেন না।

এর আগে ৭০ মিনিটে কুটিনহোর বাড়ানো বলে নেইমার বক্সের বাইরে থেকে শট নিলেও তা গোলের কোণ ফস্কে বেরিয়ে যায় এবং খেলার শেষের দিক বাদ দিয়ে কোস্টারিকার রক্ষণের সামনে নেইমার খুব একটা সুবিধা করতে পারেননি। নেইমারের এরকম প্রশমিত প্রদর্শনের সময়ে কুটিনহো, হেসুস, ক্যাসেমিরো, মার্সেলো, ডগলাস কস্টা'রা দলের হাল ধরে এগিয়ে নিয়ে চলেছেন তা ব্রাজিলের পক্ষে অনেকটাই আশাব্যঞ্জক। তবে আরো শক্তিশালী দলকে বিরুদ্ধে খেলার মাত্রা ও গুণমান না বৃদ্ধি করলে ব্রাজিলকেও তাদের বিশ্বকাপ অভিযানে হতাশ হতে হবে।

সার্বিয়া'র মতো বলিষ্ঠ খেলোয়াড়ে ভরপুর শক্তিশালী দলের বিরুদ্ধে ব্রাজিল কিভাবে খেলে সেটা দেখবার পরেই এর উত্তর মিলবে। তবে দুটো পর পর হারের ফলে কোস্টারিকা গ্রূপ পর্ব থেকেই বিদায় নিলো।

জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন