তীরে এসে তরী ডুবলো নাইটদের। রোমহর্ষক ম্যাচে বাজিমাৎ করলো রাজস্থান রয়্যালস। সমালোচকদের মুখের উপর মোক্ষম ইনিংস ছুঁড়ে মারলেও জয় অধরাই থেকে যায় দীনেশ কার্তিকের। নাইটদের দেওয়া ১৭৫ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ৩ উইকেটে ম্যাচ জিতে নেয় স্টিভ স্মিথ, আজিঙ্কে রাহানেরা। জয়ের নেপথ্যে নায়ক রিয়ান পরাগ এবং জোফরা আর্চার।

ইডেনে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ১৭৫ রান তোলে কলকাতা নাইট রাইডার্স। চলতি আইপিএলে ধারাবাহিকতা দেখতে পাওয়া যায়নি নাইট অধিনায়ক কার্তিকের ব্যাটে। তাই সমালোচকরা তাকে অধিনায়কত্ব ছাড়ার জন্য জোর দিতে থাকে। কিন্তু এদিন সমালোচকদের যোগ্য জবাব দেন নাইট অধিনায়ক। মাত্র ৫০ বলে ৯৭ রানের মারকাটারি ইনিংস খেলেন তিনি। কার্তিক ছাড়া এদিন অন্যান্য কোনো নাইট ব্যাটসম্যান জ্বলে উঠতে পারেনি। লিন শূন্য রানেই ফিরে যায়। নীতিশ রানা ২১ এবং মাসালম্যান রাসেল আজ ১৪ রানেই স্তব্ধ হয়।

১৭৬ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ৪ বল বাকি থাকতেই জয় নিশ্চিত করে রয়্যালসরা। একটা সময় যখন মনে হচ্ছিলো নাইটারা জয় ছিনিয়ে নেবে, তখনই রাজস্থানের হয়ে হুঙ্কার দিলো জোফরা আর্চার। তিনি দলের অন্যতম ভরসা। বল হাতে বাইশ গজে আগুন ঝরাতে দেখা যায় তাকে। এবার ব্যাট হাতেও। ১২ বলে ২৭ রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলে দলকে জয় এনে দিলেন তিনি। পাশাপাশি নির্ভরযোগ্য ইনিংস খেলেন দলে নতুন সুযোগ পাওয়া রিয়ান পরাগও। রিয়ান ৩১ বলে ৪৭ রান করেন। তবে দলকে শুরুটা ভালোই দিয়েছিলেন রাহানে (৩৪) ও স্যামসন (২২)। স্মিথ, স্টোকসরা ব্যর্থ হয়েছে।

লাগাতার পাঁচ ম্যাচ হেরে সঙ্কটে নাইট শিবির। প্লে অফের রাস্তা প্রায় বন্ধের পথে। তবে এরপর তিনটি ম্যাচে জয় পেলে উঠলেও উঠতে পারে প্লে অফে। তবে সে ক্ষেত্রে অন্যান্য দলের জেতা হারার স্ট্যাটিসটিকের উপর নির্ভর করবে।

(ফাইল ছবি)

জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন