২০১৮-১৯ আর্থিক বছরে নির্বাচনী খাতে কর্পোরেট ডোনেশনের পরিমাণ ৮৭৬.১০ কোটি টাকা। যে টাকার সিংহভাগ গেছে বিজেপির তহবিলে। একথা জানিয়েছে অ্যাসোসিয়েশন ফর ডেমোক্র্যাটিক রিফর্মস বা এডিআর। এডিআর-এর রিপোর্ট অনুসারে এই সময় বিজেপির খাতে জমা পড়েছে ৬৯৮ কোটি টাকা।

এডিআর-এর তথ্য অনুসারে বিজেপি ১৫৭৩টি কর্পোরেট ডোনেশন পেয়েছে। যার মোট অঙ্ক ৬৯৮.০৮ কোটি টাকা। এরপরেই স্থান কংগ্রেসের। যারা ১২২ টি কর্পোরেট ডোনেশন থেকে ১২২.৫ কোটি টাকা পেয়েছে। ১৭ কর্পোরেট সংস্থা থেকে এনসিপি পেয়েছে ১১.৩৪ কোটি টাকা।

২০১২-১৩ থেকে ২০১৮-১৯ পর্যন্ত মোট কর্পোরেট ডোনেশন ২,৮১৮.০৫ কোটি টাকার মধ্যে বিজেপি পেয়েছে ২,৩১৯.৪৮ কোটি টাকা। কংগ্রেস পেয়েছে ৩৭৬.০২ কোটি টাকা। এনসিপি পেয়েছে ৬৯.৮১ কোটি টাকা, তৃণমূল পেয়েছে ৪৫.০১ কোটি টাকা, সিপিআইএম পেয়েছে ৭.৫ কোটি টাকা এবং সিপিআই পেয়েছে ২২ লক্ষ টাকা।

উল্লেখ্য, ২০১৪-১৫ সালে কর্পোরেট ডোনেশনের পরিমাণ ছিলো ৫৭৩.১৮ কোটি টাকা। ২০১৬-১৭ সালে এই পরিমাণ দাঁড়ায় ৫৬৩.১৯ কোটি টাকা। ২০১২-১৩ থেকে ২০১৮-১৯ পর্যন্ত কর্পোরেট ডোনেশনের পরিমাণ বেড়েছে ৯৬৮ শতাংশ।

দ্য প্রোগ্রেসিভ ইলেক্টোরাল ট্রাষ্ট নাম সংস্থা বিজেপি, কংগ্রেস এবং তৃণমূল কংগ্রেসকে সর্বাধিক টাকা ডোনেশন দিয়েছে। তিনবার দেওয়া এই ডোনেশনের মোট অঙ্ক ৪৫৫.১৫ কোটি টাকা। যার মধ্যে বিজেপি পেয়েছে ৩৫৬.৫৩ কোটি। কংগ্রেস ৫৫.৬৩ কোটি এবং তৃণমূল ৪২.৯৯ কোটি।

যে যে কর্পোরেট ডোনেশন দিয়েছে তার মধ্যে ৩১৯টি সংস্থা তাদের ঠিকানা জানায়নি। ৩৪ টি ক্ষেত্রে কর্পোরেটদের প্যান সম্পর্কিত তথ্য নেই।

যে যে রাজনৈতিক দলের তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখা হয়েছে তার মধ্যে আছে বিজেপি, কংগ্রেস, এনসিপি, সিপিআই(এম) এবং তৃণমূল কংগ্রেস। বিএসপি জাতীয় দল হওয়া সত্ত্বেও এই হিসেবে বিএসপিকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি। কারণ বিএসপির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে তাদের কোনো দানই ২০ হাজার টাকার বেশি নয়।

জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন