পরিবারকে ছেড়ে দীর্ঘদিন আলাদা ছিলেন। করোনা আক্রান্ত রোগীর জন্য ২৪ ঘন্টা পাশে ছিলেন। রাতে ঘুমোতেন অ্যাম্বুলেন্সেই। করোনা সংক্রমিত হয়ে মৃতদেহ শ্মশানে নিয়ে যাওয়ার কাজও করেছেন তিনি। এবার নিজেই করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লেন বছর ৪৮ এর অ্যাম্বুলেন্স চালক করোনা যোদ্ধা আরিফ খান।

দিল্লির সিলামপুরের বাসিন্দা আরিফ খান বিগত ছয় মাসে ৪৫০-র বেশি করোনা আক্রান্তকে হাসপাতালে অথবা শেষ যাত্রায় নিয়ে গিয়েছেন। এবার ওই অ্যাম্বুলেন্স চালক করোনায় আক্রান্ত হয়ে শনিবার দিল্লির হিন্দুরাও হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। ভগত সিং সেবাদলের ফেসবুক পেজে সংস্থার পক্ষ থেকে একথা জানিয়েছেন জ্যোতজিত সিং। 

 

করোনা আবহে বহু আক্রান্ত পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন আরিফ খান। কারোর মৃত্যু হলে নিজের দায়িত্বে শহিদ ভগত সিং সেবা দলের পক্ষে অ্যাম্বুলেন্সে করে শ্মশানে নিয়ে গিয়েছেন। কিন্তু শনিবার তার মৃত্যুর পর কেউ আসেনি তাঁকে দেখতে। অ্যাম্বুলেন্স চালকের শেষকৃত্যে উপস্থিত ছিল তার পরিবার। দূর থেকে কিছুক্ষণের জন্য তাঁকে দেখতে পেয়েছিলেন তারা।

বিগত ছয় মাস ধরে জনসেবায় নিজেকে সম্পূর্ণভাবে নিয়োজিত করেছিলেন আরিফ। সূত্রের খবর চলতি মাসের শুরুর দিকে শরীরের অবনতি হতে থাকে তাঁর। করোনা পরীক্ষা করে জানা যায় তিনি সংক্রমিত হয়েছেন। হাসপাতালে ভর্তি করার পর সেখানে তার শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি হয়। গত কয়েকদিন ধরেই তাঁর শ্বাসকষ্ট বাড়ছিলো। তারপরেই তাঁর মৃত্যু হয়। পরিবার সূত্রে খবর, করোনা পরিস্থিতিতে মুহূর্তের জন্য আতঙ্কিত না হয়ে সমস্ত করোনা রোগীদের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করতেন আরিফ। সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের হওয়ার পরেও হিন্দুদের শেষকৃত্যে অংশ নিতেন তিনি।

জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন