মুম্বইয়ে প্রথম সেরো-সমীক্ষায় (জনসংখ্যাভিত্তিক-সমীক্ষা) দেখা গিয়েছে, বস্তি এলাকায় করোনা সংক্রমণের হার ৫৭ শতাংশ। যেখানে আবাসন এলাকাগুলোতে সংক্রমণের হার মাত্র ১৬ শতাংশ। বৃহন্মুম্বই মিউনিসিপাল কর্পোরেশন প্রথম এই সমীক্ষাটি করেছে। মোট তিনটি ওয়ার্ড নিয়ে সমীক্ষায় এই তথ্য উঠে এসেছে। নীতি আয়োগ, বিএমসি এবং টাটা ইনস্টিটিউট অফ ফান্ডামেন্টাল রিসার্চের যৌথ উদ্যোগে এই সমীক্ষাটি চালানো হয়েছে।

মূলত মহিলাদের মধ্যেই সংক্রমণের মাত্রা বেশি দেখতে পাওয়া গিয়েছে। তুলনামূলকভাবে পুরুষদের সংক্রমণের মাত্রা অনেকটাই কম দেখতে পাওয়া গিয়েছে। এমনকী, উপসর্গহীনদের সংখ্যাও বস্তি এলাকায় দেখতে পাওয়া গিয়েছে।

চেম্বুর, মাতুঙ্গা এবং দাহিসার এলাকায় জুলাই মাসের ১৪ দিন ধরে ৬ হাজার ৯৩৬ জনের নমুনা সংগ্রহ করে এই তথ্য পাওয়া গিয়েছে। সংক্রমণের ঠিক কতদিনের মধ্যে শরীরে অ্যান্টিবডির সৃষ্টি হচ্ছে সেটিও দেখা এই সমীক্ষার উদ্দেশ্য ছিল বলে জানা গিয়েছে।

চেম্বুর ও মাথুঙ্গা এলাকাটি এতোটাই জনঘনত্বপূর্ণ যে সোশ্যাল ডিস্ট্যান্সিং মেনে চলা কখনই সম্ভব নয়। আর দ্রুত সংক্রমণ বৃদ্ধি পাচ্ছে। বিএমসির তরফে জানানো হয়েছে্, জনঘনত্বের কারণেই সংক্রমণের হার বস্তি এলাকাতেই বেশি। কনটেনমেন্টের প্রভাব এই এলাকায় আশা করাই যায় না। অন্যদিকে, আবাসন এলাকায় এইসব ঝামেলা না থাকায় সংক্রমণের হারও অনেক কম বলে বিএমসির তরফে জানানো হয়েছে। বেশি বস্তি এলাকা থাকার কারণে মুম্বইয়ে করোনা সংক্রমণের হারও বাড়ছে। শরীরে অ্যান্টিবডি সৃষ্টি হয়ে যাওয়ার কারণে মৃত্যুহারও বাড়ছে বলে বিএমসির তরফে জানানো হয়েছে।   

জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন