১৯ জুলাই, ১৯৬৯ দেশের ১৪ টি প্রধান ব্যাঙ্কের জাতীয়করণ করা হয়েছিলো। ৫১ বছর আগেকার সেই দিনকে স্মরণে রেখে অল ইন্ডিয়া ব্যাঙ্ক এমপ্লয়িজ অ্যাসোসিয়েশন (AIBEA)-এর পক্ষ থেকে ২,৪২৬ জন ইচ্ছাকৃত ঋণখেলাপীদের তালিকা প্রকাশ করা হল। শনিবার ব্যাঙ্ক কর্মচারী ইউনিয়নের পক্ষ থেকে এই তালিকা প্রকাশ করা হয়। ইচ্ছাকৃত ঋণখেলাপীদের মোট ঋণের পরিমাণ ১.৪৭ ট্রিলিয়ন বা ১৪,৭০,০০,০০,০০,০০০ টাকা।

এআইবিইএ-র তথ্য অনুসারে দেশের ১৭টি পাবলিক সেক্টর ব্যাঙ্কে মোট ঋণখেলাপীদের তালিকায় শীর্ষে আছে স্টেট ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া। এই ব্যাঙ্কে ৬৮৫ জন ইচ্ছাকৃত ঋণখেলাপীর মোট বকেয়া ঋণ ৪৩,৮৮৭ কোটি টাকা। এরপরেই স্থান পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্কের। যেখানে ঋণখেলাপী ৩২৫ এবং মোট টাকার পরিমাণ ২২,৩৭০ কোটি। ব্যাঙ্ক অফ বরোদায় ঋণখেলাপী ৩৫৫ জন এবং মোট টাকার পরিমাণ ১৪,৬৬১ কোটি। ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ায় ১৮৪ জন ঋণখেলাপীর মোট ঋণের পরিমাণ ১১,২৫০ কোটি। সেন্ট্রাল ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ায় ৬৯ জন ঋণখেলাপীর মোট ঋণের পরিমাণ ৯,৬৬৩ কোটি। পাঞ্জাব অ্যান্ড সিন্ধ ব্যাঙ্কে ৬ ঋণখেলাপীর মোট ঋণ ২৫৫ কোটি টাকা।

 

শনিবার এই তালিকা প্রকাশ করে ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সি এইচ ভেঙ্কটাচলম এক বিবৃতিতে বলেন বেসরকারি কোম্পানী এবং কর্পোরেটদের কু ঋণই ব্যাঙ্কের সবথেকে বড়ো সমস্যা। যদি এইসব ক্ষেত্রে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হয় এবং এই টাকা উদ্ধার করা যায় তাহলে দেশের রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলো জাতীয় উন্নয়নে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা নিতে পারবে।

এদিনের তালিকা অনুসারে শীর্ষে আছে মেহুল চোকসির গীতাঞ্জলি জেমস লিমিটেড, বিজয় মাল্যর কিংফিশার এয়ারলাইন্স, রামদেব ও বালকৃষ্ণর রুচি সোয়া ইন্ডাস্ট্রিস লিমিটেড, মেহুল চোকসির উইনসম ডায়মন্ডস অ্যান্ড জুয়েলারী লিমিটেড, নীতিন সন্দেসরার স্টারলিং বায়োটেক প্রভৃতি।

জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন