দেড়শো বছরের পুরোনো ইতিহাস বিজড়িত জরাজীর্ণ ঘরটিকে আর টিকিয়ে রাখতে না পেরে আক্ষেপের শেষ নেই জলপাইগুড়ির উকিলপাড়া এলাকার বাসিন্দা মুখার্জী পরিবারের। জলপাইগুড়ির অত্যন্ত প্রাচীন বনেদি পরিবারগুলির মধ্যে একটি পরিবার যা মুখার্জী পরিবারের বাড়ি নামে পরিচিত।

একসময় তাঁদের বাড়িতে ভিড় লেগে থাকত বিপ্লবীদের। কিন্তু কালের নিয়মে সেই ভিড় আজ ইতিহাস। কথিত আছে এই বাড়িতেই  নাকি ব্রিটিশ পুলিশের চোখে ধূলো দিয়ে দীর্ঘদিন লুকিয়ে ছিলেন বাঘাযতীন। ছোটো থেকে ঠাকুমা, ঠাকুরদার কাছ থেকে এমনটাই শুনে বড় হয়েছেন বাড়ির বর্তমান সদস্যরা।

পরিবারের সদস্যরা এই গল্প জানলেও এখনকার খুব কমজনই এই বাড়ির অতীত জানেন।

রাস্তা লাগোয়া ঘরগুলো শতাধিক বছরের বেশি পুরোনো হওয়ায় অত্যন্ত বেহাল হয়ে পড়েছিলো। যে কোনো সময় ভেঙে রাস্তার উপর পড়লে মানুষজন যখম হবার উপক্রম হয়ে পড়ায় পরিবারের পক্ষ থেকে সিদ্ধান্ত নিয়ে শনিবার সেই ঘরগুলি ভেঙে ফেলা হয়।

ওই বাড়ির সদস্য পায়েল মুখার্জী জানান, আমি শুনেছি বাঘাযতীন এই ঘরে আত্মগোপন করে ছিলেন। শহরের লোকজন খুব একটা এই ইতিহাস জানেন না। অনেক স্মৃতি বিজড়িত এই ঘর। যুগের সাথে সব কিছুই পাল্টে যায়।

পরিবারের সদস্য শান্তনু মুখার্জী জানান ছোটোবেলায় শুনেছি বাঘাযতীন সহ অন্যান্য আরো অনেক বিপ্লবী আমাদের এই ঘরগুলিতে আত্মগোপন করে থেকেছেন। প্রায় ১৫০ বছরের পুরোনো ঘর। ভেঙে ফেলতে খারাপ লাগছে। কিন্তু অত্যন্ত বিপদজনক অবস্থায় ছিলো। ভেঙে না ফেললে যখন তখন রাস্তায় ভেঙে পড়তো। তাই পরিবারগত ভাবে সিদ্ধান্ত নিয়ে এই ঘরগুলি ভেঙে ফেলা হোলো।

জলপাইগুড়ি প্রবীণ নাগরিক জ্যোতি প্রসাদ রায় জানান, নানান প্রাচীন ইতিহাস সমৃদ্ধ জলপাইগুড়ির আনাচে কানাচে ছড়িয়ে আছে অজানা বহু ইতিহাস। বাঘা যতীনের স্মৃতি বিজড়িত এই ঘরটি ছিলো তার মধ্যে একটি। আক্ষেপ একটাই এই ইতিহাস ধরে রাখা গেল না। ধরে রাখতে পারলে ভালো হতো।

জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন