'প্রতিবাদকারীরা পরজীবী নয়' - প্রধানমন্ত্রীর মন্তব্যের কড়া সমালোচনায় ইয়েচুরি

'প্রতিবাদকারীরা পরজীবী নয়' - প্রধানমন্ত্রীর মন্তব্যের কড়া সমালোচনায় ইয়েচুরি
সীতারাম ইয়েচুরিফাইল ছবি সংগৃহীত

"আন্দোলনের জন্যই স্বাধীন ভারতকে পেয়েছি আমরা। "জয় হিন্দ" ছিল এই আন্দোলন স্লোগান। আধুনিক ভারত আন্দোলনের দান। নিজের ব‍্যর্থতা আড়াল করলে আন্দোলনের অপমান, ভারত কখনো মেনে নেবে না।" - প্রধানমন্ত্রীর "আন্দোলনজীবি" মন্তব্যের নিন্দা করে ট‍্যুইটারে একথা লিখেছেন সিপিআইএম সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি।

কৃষক আন্দোলনকে আক্রমণ করতে গিয়ে সোমবার রাজ‍্যসভায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, "আমরা শ্রমজীবী শব্দটা শুনেছি। কিন্তু এখন আন্দোলনজীবী নামে নতুন একধরনের সত্ত্বা এসেছে। যেখানেই বিক্ষোভ হয় সেখানেই তাঁদের দেখা যায়, তা সে শিক্ষার্থী, আইনজীবী বা শ্রমিকদের আন্দোলন হোক না কেন। এঁরা আন্দোলন ছাড়া বাঁচতে পারে না। এঁদের চিহ্নিত করতে হবে এবং এঁদের হাত থেকে দেশকে রক্ষা করতে হবে। এঁরা দেশের পরজীবী। এই পরজীবীদের তুলে ছুঁড়ে ফেলে দিতে হবে।"

প্রধানমন্ত্রীর এই মন্তব্যে ক্ষুব্ধ সীতারাম ইয়েচুরি ট‍্যুইটে লেখেন, "আন্দোলনজীবী? জনগণ তাঁদের জীবন বাঁচাতে, নিরাপত্তার দাবিতে, আর একটু সুযোগ-সুবিধার জন্য, আর একটু ভালো জীবিকা নিশ্চিত করার জন্য আন্দোলন করেন। প্রতিবাদকারীরা পরজীবী নয়, এঁরা দেশপ্রেমিক, প্রতিবাদের শক্তিতে যাঁরা ক্ষমতা দখল করেন।"

রাষ্ট্রপতির ভাষণের জবাবে ধন‍্যবাদ দিতে গিয়ে এদিন নতুন কৃষি আইনের পক্ষে সওয়াল করেছেন প্রধানমন্ত্রী। বিরোধীদের আক্রমণ করে তিনি বলেন, "একসময় এই সংস্কারের পক্ষে অনেকেই ছিলেন। আজ যখন মোদী সরকার এই সংস্কার কার্যকর করতে চলেছে, তখন তাঁরাই বিরোধিতা করছেন। এঁরা শুধু রাজনীতির জন‍্যই বিরোধিতা করছেন।"

ট‍্যুইটারে এর জবাবও দিয়েছেন ইয়েচুরি। তাঁর ট‍্যুইট, "প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ মিথ্যা কথায় পূর্ণ। আমরা কৃষিক্ষেত্রে সংস্কার চেয়েছিলাম কিন্তু তা ছিল কৃষকদের স্বাস্থ্যকর উপার্জন, খাদ‍্য সুরক্ষা নিশ্চিত করা এবং ভারতীয় কৃষিকে শক্তিশালী করার দাবিতে। ভারতীয় কৃষি ধ্বংস ও কৃষকদের সর্বনাশ করে পুঁজিপতি কর্পোরেটদের উপকারের জন্য নয়। তিনটি কালা আইন বাতিল করুন।"

আমাদের সার্ভেতে যোগ দিন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in