e-SHRAM: ই-শ্রম পোর্টালে নাম নথিভুক্ত করেছেন ১ কোটির বেশি অসংগঠিত শ্রমিক, ৪৩ শতাংশই মহিলা

ই-শ্রম পোর্টালে নাম লেখালে অসংগঠিত শ্রমিকরা একটি ডিজিটাল ই-শ্রম কার্ড পাবেন। নথিভুক্ত শ্রমিক দুর্ঘটনায় মারা গেলে বা স্থায়ীভাবে পঙ্গু হয়ে গেলে দুলক্ষ এবং আংশিক অঙ্গহানি হলে ১ লক্ষ টাকা পাবেন।
e-SHRAM: ই-শ্রম পোর্টালে নাম নথিভুক্ত করেছেন ১ কোটির বেশি অসংগঠিত শ্রমিক, ৪৩ শতাংশই মহিলা
প্রতীকী ছবি সংগৃহীত

অসংগঠিত ক্ষেত্রের শ্রমিকদের বিভিন্ন কল্যাণমূলক কর্মসূচির সুযোগ পৌঁছে দিতে তথ্য ভাণ্ডার তৈরির জন্য ই-শ্রম পোর্টালের সূচনা করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। তাতে এখনও পর্যন্ত ১কোটির বেশি শ্রমিকের নাম নথিভুক্ত হয়েছে।

২৬ অগস্ট সূচনার পর থেকে ই-শ্রম পোর্টালে অসংগঠিত ক্ষেত্রের শ্রমিকদের নাম লেখানোয় উৎসাহ দেখা যাচ্ছে।রবিবার পর্যন্ত ১ কোটি ৩ লক্ষ ১২ হাজার ৯৫ জন শ্রমিক পোর্টালে নাম লিখিয়েছেন। এর মধ্যে ৪৩ শতাংশ মহিলা।

নির্মাণ শিল্প, জামাকাপড় তৈরি, মাছ ধরা, মঞ্চ নির্মাণ, হকার, গৃহ পরিচারকের কাজ, চাষবাস, পরিবহন ইত্যাদি অসংগঠিত ক্ষেত্রের সাথে যুক্ত শ্রমিকরা নাম নথিভুক্ত করতে পারেন ই-শ্রম পোর্টালের। শ্রমিকদের বিস্তারিত তথ্য জমা হচ্ছে ই-পোর্টালে।

পরিযায়ী শ্রমিকদের একটা বড় অংশই অসংগঠিত ক্ষেত্রে কাজ করে। ২০১৯-২০ সালের অর্থনৈতিক সমীক্ষা অনুযায়ী দেশে প্রায় ৩৮কোটি অসংগঠিত শ্রমিক আছে। তাঁদেরও নাম নথিভুক্ত করা যাবে এই পোর্টালে। এই নথিভুক্তির মাধ্যমে পরিযায়ী শ্রমিকরাও এখন থেকে বিভিন্ন সামাজিক সুরক্ষা ও কর্মসংস্থান ভিত্তিক কর্মসূচির সুযোগ নিতে পারবেন।

সাম্প্রতিক পাওয়া তথ্য অনুযায়ী বিহার, ওড়িশা, উত্তরপ্রদেশ এবং পশ্চিমবঙ্গে নথিভুক্তি হয়েছে সবচেয়ে বেশি। সেই তুলনায় ছোট রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিতে নথিভুক্তির সংখ্যা কম।

অসংগঠিত ক্ষেত্র এবং কর্মসংস্থানের জন্য গুরুত্বপূর্ণ কল্যাণমূলক কর্মসূচি ও অধিকারের সুযোগ পৌঁছে দিতে কেরল, গুজরাত, উত্তরাখণ্ড, মেঘালয়, মণিপুর, অরুণাচলপ্রদেশ, লাদাখ, জম্মু ও কাশ্মীর এবং চণ্ডীগরের মতো রাজ্য ও কেন্দ্র শাসিত অঞ্চলে নথিভুক্তির উপরে জোর দিতে হবে।

এখনও পর্যন্ত যে নাম নথিভুক্ত হয়েছে তাঁদের মধ্যে বেশিরভাগই কৃষি ও নির্মাণ শিল্প ক্ষেত্রের।

নথিভুক্ত শ্রমিকদের ৪৮ শতাংশের বয়স ২৫ থেকে ৪০ এর মধ্যে। ২১শতাংশের বয়স ৪০ থেকে ৫০ বছর। ১৯ শতাংশ ১৬ থেকে ২৫ বছর বয়সী এবং ১২ শতাংশের বয়স ৫০এর বেশি।

ই-শ্রম পোর্টালে নাম লেখালে অসংগঠিত শ্রমিক একটি ডিজিটাল ই-শ্রম কার্ড ও ইউনিভার্সাল অ্যাকাউন্ট নাম্বার পাবেন। সারা দেশেই মান্যতা পাবে এই কার্ড। নথিভুক্ত শ্রমিক দুর্ঘটনায় মারা গেলে বা স্থায়ীভাবে পঙ্গু হয়ে গেলে দুলক্ষ এবং আংশিক অঙ্গহানি হলে ১ লক্ষ টাকা পাবেন।

- With IANS Input

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.