এক ছাত্রমৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব প্রবল আকার ধারণ করলো কোচবিহারে। গত ১৩ জুলাই কলেজ থেকে বাড়ি ফেরার সময় শাসকদলের গোষ্ঠী কোন্দলে গুলিবিদ্ধ হন তৃণমূল ছাত্র পরিষদ ইউনিটের আহ্বায়ক মাজিদ আনসারি। গত বুধবার কোচবিহারে এক বেসরকারি নার্সিংহোমে তাঁর মৃত্যু হয়।

মাজিদ আনসারির মৃত্যুকে কেন্দ্র করে শুক্রবার সকাল থেকে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে কোচবিহার। জেলা জুড়ে বনধ পালিত হয়। রাস্তায় কিছু পরিবহণ চালু থাকলেও দোকান বাজার বন্ধ ছিলো। রাস্তায় রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ দেখায় বিক্ষোভকারীরা।

এই ঘটনায় নাম জড়ায় উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষের ঘনিষ্ঠ মুন্না খান এবং তৃণমূল কাউন্সিলর শুভজিত কুন্ডুর অনুগামীদের বিরুদ্ধে। মৃতের দাদা এঁদের নামে থানায় অভিযোগ দায়েরের পর চাপের মুখে গতরাতে পুলিশ মুন্নাকে আটক করে। শুক্রবার সকালে পুলিশ দীর্ঘ জেরার পর মুন্নাকে গ্রেপ্তার করে।

এই খুনের ঘটনায় রবীন্দ্রনাথ ঘোষের ঘনিষ্ঠের গ্রেপ্তারির পর এদিন সকাল থেকেই তৃণমূলের অন্য গোষ্ঠীর সমর্থকরা রাস্তায় নেমে রবীন্দ্রনাথ ঘোষ বিরোধী শ্লোগান দেয়। বিক্ষোভ দেখায়।

এই বনধ প্রসঙ্গে সিপিআই(এম) কোচবিহার জেলা সম্পাদক অনন্ত রায় জানান - এই বন্ধকে আমরা নৈতিক সমর্থন করেছি। আমাদের জেলার পুলিশ প্রশাসনের মাথায় যিনি বসে আছেন তাঁকে দিয়ে জেলার আইনশৃঙ্খলার কোনও উন্নতি ঘটবে না। কারণ তিনি পক্ষপাতদুষ্ট। আসামী নাকের ডগায় ঘুরে বেড়াচ্ছে। আমাদের দাবী এঁকে এখান থেকে তুলে নেওয়া হোক।

শনিবার ছাত্র খুনের ঘটনায় কোচবিহারে বিক্ষোভ কর্মসূচির ডাক দিয়েছে বাম ছাত্র ও যুব সংগঠন।


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন