নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভের ঘটনায় হিংসা রুখতে রাজ্যের পাঁচ জেলার কিছু অংশে ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধের সিদ্ধান্ত নিল সরকার। প্রশাসনের তরফে বারবার বলা সত্ত্বেও, কিছু বহিরাগত এবং সাম্প্রদায়িক শক্তির উসকানিতে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় হিংসা ছড়িয়ে পড়ছে। রাজ্য সরকারের বক্তব্য, সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে কার্যত নিরুপায় হয়ে মুর্শিদাবাদ, মালদা, হাওড়া, উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগণার বেশ কিছু এলাকায় ইনটারনেট পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে।

গত শুক্রবার থেকে শুরু হওয়া বিক্ষোভ আন্দোলন কার্যত ধ্বংসাত্মক চেহারা নিয়েছে। একের পর এক ট্রেনে ভাঙচুর, আগুন লাগানোর ঘটনা ঘটেছে। ক্রমশ তা মারাত্মক চেহারা নিচ্ছে রাজ্যের বেশ কিছু জেলায়।

লোকসভায় ও রাজ‍্যসভায় পাশের পর বৃহস্পতিবার এই নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলে স্বাক্ষর করে তা আইনে পরিণত করেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। বিতর্কিত এই বিলে বলা হয়েছে, ২০১৪ সালের ৩১শে ডিসেম্বর পর্যন্ত বাংলাদেশ, পাকিস্তান, আফগানিস্তান থেকে ধর্মীয় নিপীড়নের কারণে যে সমস্ত হিন্দু, বৌদ্ধ, জৈন, শিখ, পার্সী ও খ্রিস্টানরা এ দেশে এসেছেন তাদের ভারতের নাগরিকত্ব দেওয়া হবে।


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন