বুধবার রাজ্যের ১৯ টি জেলার ৫৭২ টি বুথে পুনর্নির্বাচন শুরু হয়েছে সকাল থেকে। সবথেকে বেশি ৭৩ টি বুথে ভোট হচ্ছে উত্তর দিনাজপুরে। সব মহলেরই দাবি ১৪ মে পঞ্চায়েত ভোটে যে ভয়ঙ্কর ছবি দেখা গিয়েছিল তার পুনরাবৃত্তি যাতে না হয় তার জন্য সকাল থেকেই সতর্ক প্রশাসন। যদিও বুধবারও পুনঃনির্বাচনকে ঘিরে বিভিন্ন এলাকা থেকে সংঘর্ষের খবর পাওয়া যাচ্ছে।

 বুধবার পুনর্নিবাচনের দিন সকাল থেকেই উত্তপ্ত ছিলো মাঝিয়ান বুথ চত্ত্বর।  সিপিআইএমের কর্মী ও সমর্থকদের ভোটে বাধা দেওয়া ও মারধোরের অভিযোগ অভিযোগ ওঠে তৃণমূলের বিরুদ্ধে। বেলা বাড়তেই চলে বুথ দখলের চেষ্টা । বিরোধীদের অভিযোগ পুলিশের সামনেই চলছে চলছে ছাপ্পা। সিপিআইএমের কর্মীরা জানিয়েছেন তাদের বের করে দিয়ে পুলিশ তৃণমূলের হয়ে ভোট দিচ্ছে। স্থানীয় মানুষ ভোট দিতে পারছে না। পোলিং এজেন্টদের মারধোর করে বের করে দেওয়া হয়েছে। নির্বাচন কর্মীদের হুমকি দিয়ে ভয় দেখিয়ে চলছে ছাপ্পা ভোট। সমস্ত অভিযোগই অস্বীকার করা হয়েছে তৃণমূলের পক্ষ থেকে।

অন্যদিকে মালদায় আজ ভোট শুরু হওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই বন্দুক হাতে তান্ডব শুরু হয়ে যায় দুষ্কৃতীদের। রতুয়া ১ নম্বর ব্লকের বাহারালের বাখরা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৭৬ নম্বর বুথে সশস্ত্র দুষ্কৃতীদের এই হামলা চলে। ব্যালট বক্স ছিনিয়ে নিয়ে চলে যায় দুষ্কৃতীরা। বুথ ছেড়ে পালিয়ে যান ভোটকর্মী, ভোটার ও পুলিশকর্মীরা। অভিযোগ তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীদের দিকে।

এদিন বিক্ষুব্ধ ভোটকর্মীদের বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে ওঠে রায়গঞ্জ। গণনার দিন অতিরিক্ত নিরাপত্তার দাবীর বিক্ষুব্ধ ভোটকর্মীদের হাতে প্রহৃত হন এসডিও টি এন শেরপা। অবরোধ করা হয় রায়গঞ্জ ঘড়ির মোড়।


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন