হুগলি জেলার জাঙ্গিপাড়ায় ফুরফুরা শরিফের উন্নয়ন এবং পর্যটন কেন্দ্র বলে ঘোষণা বাংলার মানুষকে তথা সংখ্যালঘু মানুষদের কাছে রাজ্য সরকারের দেওয়া এক বিরাট ভাঁওতা বলে অভিযোগ করেছেন ফুরফুরা শরিফের পীরজাদা ত্বহা সিদ্দিকী।

তিনি আরো অভিযোগ করেছেন, পর্যটন মন্ত্রী এখানে বহুবার এসেছেন পর্যটন কেন্দ্র বলে ঘোষণা করেছেন, কিন্তু তার কোন কাগজপত্রও ঠিক নেই। এই অঞ্চলে সংখ্যালঘুদের তিনটি বিশেষ দিনে প্রায় তিরিশ লাখ লোকের সমাগম হয়। কিন্তু মুখে উন্নয়নের কথা বললেও কয়েকটি ত্রিফলা আলো লাগানো ছাড়া অন্য কোনো পরিষেবা দেওয়া হয়নি।

তিনি আরো জানিয়েছেন কিছুদিন আগে মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করেছিলেন ফুরফুরায় একটি মুসাফিরখানা তৈরি হচ্ছে যার একতলা তৈরির কাজ সমাপ্ত। কিন্তু বাস্তবে তা সর্বৈব মিথ্যে, তখনও এক কোদাল মাটিও কাটা হয়নি। পরে তিনি মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে এবিষয়ে কথা বলার পরে ফুরফুরা শরিফের থেকে আড়াই কিলোমিটার দুরত্বে মানুষের বাসের অযোগ্য একটি মুসাফিরখানা তৈরি করা হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী মুখে নিজেকে অসাম্প্রদায়িক বলে দাবি করলেও গঙ্গাসাগর মেলায় খরচ করেন সত্তর কোটি টাকা, যেখানে ফুরফুরায় খরচা করা হয় মাত্র আঠারো লাখ টাকা।

বুধবার রাজ্যের পর্যটনমন্ত্রী গৌতম দেব এই অঞ্চল পরির্দশনে এসে জানিয়েছেন, সমস্ত অভিযোগ এবং সমস্যা মুখ্যমন্ত্রীকে জানানো হবে এবং সত্বর এর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন