Cow Smuggling Case: জামিনের আবেদন খারিজ, গোরু পাচার কান্ডে ফের ৪ দিনের CBI হেফাজত অনুব্রত মণ্ডলের

শনিবার নির্ধারিত সূচি মেনে অনুব্রত মণ্ডলকে আসানসোল আদালতে পেশ করে সিবিআই। অনুব্রত মণ্ডলের আইনজীবী তাঁর জামিনের আবেদন জানালেও আদালত তা খারিজ করে দেয়।
অনুব্রত মণ্ডল
অনুব্রত মণ্ডলগ্রাফিক্স সুমিত্রা নন্দন

গোরু পাচার মামলায় আরও চার দিনের সিবিআই হেফাজত হল বীরভূমের দোর্দণ্ডপ্রতাপ তৃণমূল নেতা অনুব্রত মণ্ডলের। শনিবার নির্ধারিত সূচি মেনে অনুব্রত মণ্ডলকে আসানসোলের বিশেষ আদালতে পেশ করে সিবিআই। অনুব্রত মণ্ডলের আইনজীবী তাঁর জামিনের আবেদন জানালেও বিচারপতি রাজেশ চক্রবর্তী তা খারিজ করে দেন। ২৪ তারিখ পর্যন্ত সিবিআই হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি।

শনিবার সকালে আলিপুর কম্যান্ড হাসপাতাল থেকে শারীরিক পরীক্ষার পর তাঁকে আসানসোলে নিয়ে যাওয়া হয়। অনুব্রতর হাজিরাকে কেন্দ্র করে এদিন উত্তপ্ত হয়ে ওঠে আসানসোলের সিবিআই কোর্ট চত্বর। একদিকে তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে অনুব্রতর সমর্থনে বিক্ষোভ দেখানো হয়। তাঁদের দাবি, ‘অগণতান্ত্রিকভাবে ফাঁসানো হয়েছে অনুব্রত মণ্ডলকে’। অন্যদিকে এর পালটা বিক্ষোভ দেখায় কংগ্রেস, সিপিআইএম। অনুব্রতকে দেখে ‘গোরু চোর’ স্লোগান ওঠে। একসময় স্লোগান পালটা স্লোগানে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে।

শনিবার আদালতে অনুব্রত মণ্ডলের পক্ষের আইনজীবী বলেন, যে চালকল নিয়ে বিতর্ক সেই চালকল অনুব্রত মণ্ডলকে উপহার দিয়েছেন তাঁর শ্বশুর। উল্লেখ্য, গতকাল এই ভোলে বোম চালকলে তল্লাশি অভিযান চালায় সিবিআই। এদিন অনুব্রতর আইনজীবী আরও বলেন, সিবিআইকে যথেষ্ট সহযোগিতা করা সত্ত্বেও বারবার অসহযোগিতার অভিযোগ আনা হচ্ছে।

শনিবার সকালেই গোরু পাচার কান্ডে আসানসোল আদালতে অনুব্রতের পক্ষে জামিনের আবেদন জানান তাঁর আইনজীবী। তাঁর যুক্তি ছিল শারীরিক অসুস্থতার কারণে তাঁর উপযুক্ত চিকিৎসার প্রয়োজন। সেই কারণে তাঁকে জামিন দেওয়া হোক। তিনি তদন্তের কাজে সবরকম সহযোগিতা করবেন। যদিও অনুব্রতর আইনজীবীর এই আবেদনে সাড়া দেননি আসানসোলের বিশেষ আদালতের বিচারপতি।

সিবিআই-এর পক্ষ থেকে জানানো হয়, অনুব্রত মণ্ডল অত্যন্ত প্রভাবশালী ব্যক্তি। তাঁকে যদি এখন জামিন দেওয়া হয় তিনি সাক্ষীদের প্রভাবিত করতে পারেন এবং প্রমাণ লোপাট করতে পারেন। গ্রেফতারির আগে ও পরে তিনি তদন্তে সহযোগিতা করেননি। তিনি তদন্তকারীদের বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করেছেন। পাশাপাশি আরও জানানো হয়, অনুব্রত মণ্ডলের মেয়েকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সিবিআই দল গেলেও তাঁদের ফিরিয়ে দেওয়া হয়। যে ঘটনাকে সিবিআই অসহযোগিতা হিসেবে দেখাতে চাইছে। সিবিআই-এর আরও দাবি, গোরু পাচারের টাকা যেত অনুব্রতর কাছে। অনুব্রতকে আরও জিজ্ঞাসাবাদ প্রয়োজন।

উল্লেখ্য, গত আগস্ট বোলপুরের নিচুপট্টি এলাকায় বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করা হয় তৃণমূলের প্রভাবশালী জেলা নেতা অনুব্রত মণ্ডলকে। তখন থেকে তিনি সিবিআই হেফাজতেই আছেন। আদালতের নির্দেশ মেনে শারীরিক পরীক্ষা চালানোর পাশাপাশি গোরু পাচার কান্ডে জিজ্ঞাসাবাদ চালিয়ে যাচ্ছে সিবিআই।

অনুব্রত মণ্ডল
"গাড়ি নিবি, না গাঁজার কেস খাবি?" - অনুব্রতর হুমকির বিরুদ্ধে মুখ খুললেন বীরভূমের দুই ব্যবসায়ী

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in