‘নগরীর নটীরা’ টাকা নিয়ে কেলি করে বেড়িয়েছেন - তথাগতর নিশানায় BJPর তারকা প্রার্থী থেকে নেতৃত্ব

কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিলেন বিজেপি নেতা তথাগত রায়। তাঁর নিশানায় শ্রাবন্তী, পায়েলদের মতো তারকা প্রার্থী ছাড়াও বঙ্গ বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ, পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয়রাও।
‘নগরীর নটীরা’ টাকা নিয়ে কেলি করে বেড়িয়েছেন - তথাগতর নিশানায় BJPর তারকা প্রার্থী থেকে নেতৃত্ব
তথাগত রায়ফাইল ছবি সংগৃহীত

বিধানসভা নির্বাচনে আশাতীত ফল তো হয়নিই, বরং ব‍্যাপক ভরাডুবি ঘটেছে বিজেপির। যা নিয়ে ইতিমধ্যেই দোষারোপ পাল্টা-দোষারোপ শুরু হয়েছে। কিন্তু এতোদিন তা ছিল দলের অভ্যন্তরেই। এবার প্রকাশ্যেই দলের কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিলেন বর্ষীয়ান বিজেপি নেতা তথাগত রায়। এবার তাঁর নিশানায় শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়, পায়েল সরকারদের মতো তারকা প্রার্থী ছাড়াও বঙ্গ বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ, বঙ্গ বিজেপির পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয়দের মতো নেতারাও রয়েছেন।

তৃণমূলের দেখানো পথে হেঁটে এবারের বিধানসভা নির্বাচনে একঝাঁক তারকাকে টিকিট দিয়েছিল বিজেপি। এই তালিকায় শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়, পায়েল সরকার, পার্নো মিত্র, তনুশ্রী চক্রবর্তীর মতো অভিনেত্রীরা ছাড়াও যশ দাশগুপ্ত, রুদ্রনীল সেনগুপ্ত, হিরণ‌ চ‍্যাটর্জির মতো অভিনেতারাও ছিলেন। খড়গপুর সদর কেন্দ্র থেকে একমাত্র হিরণ ছাড়া বাকি সমস্ত তারকা প্রার্থীরাই পরাজিত হয়েছেন।

এই প্রসঙ্গে নিজের ট‍্যুইটারে মেঘালয়ের প্রাক্তন রাজ‍্যপাল তথা বিজেপি নেতা তথাগত রায় লেখেন, "পায়েল শ্রাবন্তী পার্নো ইত্যাদি ‘নগরীর নটীরা’ নির্বাচনের টাকা নিয়ে কেলি করে বেড়িয়েছেন আর মদন মিত্রর সঙ্গে নৌকাবিলাসে গিয়ে সেলফি তুলেছেন (এবং হেরে ভূত হয়েছেন) তাঁদেরকে টিকিট দিয়েছিল কে? কেনই বা দিয়েছিল? দিলীপ-কৈলাশ-শিবপ্রকাশ-অরবিন্দ প্রভুরা একটু আলোকপাত করবেন কি?"

রাজ্যপালের পদ থেকে অবসরের পর সক্রিয় রাজনীতির জগতে ফিরতে চেয়েছিলেন তথাগত রায়। দলীয় নেতৃত্বের কাছে ভবানীপুর কেন্দ্র থেকে প্রার্থী হবার ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন তথাগত। যদিও তাঁর ইচ্ছেয় গুরুত্ব দেয়নি দল। যা নিয়ে ক্ষুব্ধ ছিলেন বর্ষীয়ান এই বিজেপি নেতা।

এদিনই অন্য এক ট্যুইটে বিজেপি প্রার্থীদের টাকা দেবার প্রসঙ্গ টেনে এনে তিনি লেখেন - ভুললে চলবে না নির্বাচন পরিচালনার জন্য বিজেপি প্রার্থীদের ভালোরকম টাকা দেওয়া হয়। এক্ষেত্রে তাঁর ইঙ্গিত - সেই টাকা এই প্রার্থীরা কোথায় খরচ করলেন?

এই ট‍্যুইটের পরই সোশ্যাল মিডিয়ায় তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছেন তিনি। বর্ষীয়ান নেতার শব্দচয়ন নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকেই। যদিও এর আগেও একাধিকবার বিতর্কিত ও অশালীন শব্দচয়ন করেছেন তিনি। দোলের দিন তৃণমূল নেতা মদন মিত্রের সাথে দোল খেলায় এই অভিনেত্রী প্রার্থীদের নগরীর নটি বলে কটাক্ষ করেছিলেন তিনি।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, প্রতিবারই তথাগত রায়ের নিশানায় মহিলারাই থাকেন। এবারেও তাই হয়েছে। ট‍্যুইটারে শ্রাবন্তী, পায়েলদেরই আক্রমণ করেছেন তিনি। অপরদিকে পরাজিত অভিনেতা যশ দাশগুপ্ত বা রুদ্রনীলের নাম ট‍্যুইটে ব‍্যবহার করেননি তিনি।

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in