Tamilnadu: বসবার অধিকার পেয়ে খুশি দোকান কর্মচারীরা, বিরোধিতায় ব্যবসায়ীরা

১৯৪৭-এর শপ অ্যান্ড এসট্যাব্লিশমেন্ট আইনে পরিবর্তনে খুশির হাওয়া কর্মচারী মহলে। যদিও ব্যবসায়ী সংগঠন সরকারের এই সিদ্ধান্তে অসন্তুষ্ট। তাদের বক্তব্য, এই সিদ্ধান্তে কর্মচারীদের আলস্য বাড়বে, কাজে আগ্রহ কমবে
Tamilnadu: বসবার অধিকার পেয়ে খুশি দোকান কর্মচারীরা, বিরোধিতায় ব্যবসায়ীরা
প্রতীকী ছবি ফাইল ছবি, সৌজন্য - দ্য লজিক্যাল ইন্ডিয়ান

তামিলনাড়ুর দোকান কর্মচারীদের জন্য সুখবর। কাজের জায়গায় বসার জন্য চেয়ার পাওয়ার অধিকার পেতে চলেছেন তাঁরা। এমনই একটি বিল এনেছে তামিলনাড়ুর সদ্য নির্বাচিত এম কে স্ট্যালিনের নেতৃত্বাধীন ডিএমকে সরকার।

গত সোমবার ৬ সেপ্টেম্বর তামিলনাড়ুর শ্রমিক কল্যাণ ও দক্ষতা উন্নয়ন মন্ত্রী সি ভি গণেশন রাজ্য বিধানসভায় পেশ করেছেন একটি সংশোধনী বিল। এতে দোকান এবং বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানগুলিতে কর্মচারীদের বসার জন্য ব্যবস্থা রাখা বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে। ফলে তাদের আর সারাক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকতা হবে না। কাজের ফাঁকে ফাঁকে বসে জিরিয়ে নিতে পারবেন তাঁরা।

স্বভাবতই ১৯৪৭-এর শপ অ্যান্ড এসট্যাব্লিশমেন্ট আইনে এই পরিবর্তনে খুশির হাওয়া কর্মচারী মহলে। কিন্তু ব্যবসায়ী সংগঠন এবং অনেক ব্যবসায়ীই সরকারের এই সিদ্ধান্তে অসন্তুষ্ট। তাদের বক্তব্য, সরকারের এই সিদ্ধান্তে কর্মচারীদের আলস্য বাড়বে, কাজে আগ্রহ কমবে। অন্যদিকে কর্মচারীদের মতে অনেক জায়গায় সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত দাঁড়িয়ে কাজ করার জন্য তৈরি হয় শারীরিক ও মানসিক সমস্যা। নতুন আইনে সেটা কমবে।

চেন্নাই, সান্থোমের এক কাপড়ের দোকানের কর্মচারী মনিমেখলা জানিয়েছেন, তামিলনাড়ু সরকার যে বিল এনেছে আমরা দীর্ঘদিন তার প্রতীক্ষায় ছিলাম। আমাদের মত কর্মচারী, যাদের সকাল থেকে রাত পর্যন্ত দাঁড়িয়ে কাজ করতে হয় তাঁদের জন্য এই খবর খুবই আনন্দের।

অন্যদিকে চেন্নাইয়ের এক কাপড়ের দোকানের মালিক সম্মুঘাসুন্দরন জানিয়েছেন, আমরা কর্মচারীদের সমস্ত রকম সুযোগসুবিধা দিই। সরকারের এরকম বিল আনার কোনো প্রয়োজন ছিলো না। এই ধরণের সিদ্ধান্তে কর্মীরা অলস হয়ে পড়বে এবং তাঁদের কর্মক্ষমতা কমবে।

কেরলে যখন উমেন চান্ডি মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন, শ্রমমন্ত্রী শিবু বেরি জন রাজ্য যুব কল্যাণ কমিশনের সুপারিশে এই ধরনের সংশোধনী এনেছিলেন। কমিশনের তৎকালীন চেয়ারম্যান কংগ্রেস নেতা আইনজীবী আর ভি রাজেশ জানিয়েছেন, 'কোঝিকোড়ের একটি মহিলা সংগঠনের কাছ থেকে অভিযোগ পেয়ে তাঁরা সেই সময় একাধিক দোকানে ঘুরে দেখেছিলেন কী অসহনীয় অমানবিক পরিস্থিতির মধ্যে কাজ করতে হয় কর্মচারীদের। এর পরেই আইনে পরিবর্তন করে দোকান মালিকদের জন্য বড়সড় জরিমানার সংস্থান রাখা হয়। বর্তমানে বাম সরকার আরও পরিবর্তন এনেছে। আর বাম সরকারের সেই সিদ্ধান্তে কর্মচারীদের কাজের মান কমেনি বরং বেড়েছে।'

- with inputs from IANS

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in