Maharashtra: ফের পালাবদল? মধ্যবর্তী বিধানসভা নির্বাচনের জন্য কর্মীদের প্রস্তুতির পরামর্শ উদ্ধবের

শিবসেনা মুখপাত্র জানান, ‘২০২৪ সালের অক্টোবর মাস পর্যন্ত মেয়াদ থাকলেও রাজ্যে মধ্যবর্তী নির্বাচন করানোর ছক রয়েছে বিজেপির।
উদ্ধব ঠাকরে
উদ্ধব ঠাকরেফাইল চিত্র - সংগৃহীত

যে কোনও সময় মহারাষ্ট্রে (Maharashtra) মধ্যবর্তী বিধানসভা নির্বাচন (Mid-term Assembly Elections) হতে পারে। সেই সম্ভাবনার কথা জানিয়ে দলীয় কর্মীদের প্রস্তুত থাকার পরামর্শ দিয়েছেন শিবসেনা (UBT- উদ্ধব বালাসাহেব ঠাকরে) প্রধান উদ্ধব ঠাকরে (Uddhav Thackeray)।

শনিবার, বিধানসভা-ভিত্তিক কর্মীদের নিয়ে মুম্বইয়ে এক রুদ্ধদ্বার বৈঠকে উদ্ধব ঠাকরে বলেন, ‘মহারাষ্ট্রে যেকোনও সময়ে ফের বিধানসভা নির্বাচন হতে পারে, তাই আমাদের সমস্ত স্তরে তার প্রস্তুতি সেরে ফেলতে হবে।

এপ্রসঙ্গে, শিবসেনার (UBT) প্রধান মুখপাত্র ও সাংসদ অরবিন্দ সাওয়ান্ত (Arvind Sawant) বলেন, ‘রাজ্যে একটি অসাংবিধানিক সরকার (An unconstitutional government) চলছে। যখনই সুপ্রিম কোর্টের (Supreme Court) সিদ্ধান্ত আসবে, তখন এই সরকারের কী হবে আপনারা জানেন।’

সম্প্রতি, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ঘোষণা করেছেন, ‘মহারাষ্ট্রে ২ লক্ষ কোটি টাকার প্রকল্প তৈরি হবে। মোদীর সেই বক্তব্যকেই সামনে রেখে অরবিন্দ সাওয়ান্ত দাবি করেন, রাজ্যের জন্য প্রধানমন্ত্রীর ২ লক্ষ কোটি টাকার প্রকল্প ঘোষণা করার সাথে মধ্যবর্তী নির্বাচনগুলির সম্পর্ক রয়েছে।’

শিবসেনা মুখপাত্র জানান, ‘২০২৪ সালের অক্টোবর মাস পর্যন্ত মেয়াদ থাকলেও রাজ্যে মধ্যবর্তী নির্বাচন করানোর ছক রয়েছে বিজেপির। কারণ, এই একই ধরনের টোপ গুজরাট ও হিমাচল প্রদেশের বিধানসভা নির্বাচনে ভোটারদের প্রভাবিত করার জন্য দিয়েছে তারা। অনুরূপ, মহারাষ্ট্রের সম্পর্কেও প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা আগাম নির্বাচনের সম্ভাবনাকে বাড়িয়ে দিয়েছে।’

তবে, মহারাষ্ট্রে কোন ধরনের প্রকল্প হবে/পাবে সে বিষয়ে স্পষ্ট কিছু জানান নি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। অন্যদিকে, গত কয়েক সপ্তাহে চার-চারটি বিনিয়োগ প্রকল্প হাতছাড়া হয়েছে মহারাষ্ট্রের। আর, সবকটি চলে গিয়েছে গুজরাটে। এর ফলে প্রায় ১.৮০ লক্ষ কোটি টাকার বিনিয়োগের সুযোগ হাতছাড়া হয়েছে মহারাষ্ট্রের। এ নিয়ে বিরোধীদের সমালোচনার মুখে পড়েছে- মুখ্যমন্ত্রী একনাথ সিন্ধে এবং উপ-মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবিসের সরকার।

সম্প্রতি, যে চারটি বড় বড় প্রকল্প হাতছাড়া হয়েছে মহারাষ্ট্রের, তার মধ্যে রয়েছে- বেদান্ত-ফক্সকন চুক্তি, বাল্ক ড্রাগ পার্ক, মেডিকেল ডিভাইস পার্স ও টাটা এয়ার বাস প্রকল্প।  

সে যাইহোক, মধ্যবর্তী বিধানসভা নির্বাচন নিয়ে শিবসেনার দাবি উড়িয়ে দিয়েছেন বর্ষীয়ান বিজেপি নেতা ও বিধান পরিষদ সদস্য প্রভীন দারেকার। তিনি জানান, ‘জুন মাসে ক্ষমতায় আসার পর থেকেই সিন্ধে-ফড়নবিশ সরকার সাধারণ মানুষের জন্য প্রচুর ভালো কাজ করেছেন। অনেক জনমুখী সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। যার ফলে ভাঙন ধরেছে উদ্ধবের নেতৃত্বাধীন শিবসেনায়। তাই দলীয় কর্মীদের ধরে রাখতেই এই ধরনের মন্তব্য করছেন উদ্ধব ও তাঁর দলের নেতারা।’

উদ্ধব ঠাকরে
Maharashtra: গ্রাম পঞ্চায়েত নির্বাচনে অভাবনীয় সাফল্য CPIM-র, সরপঞ্চ পদে ৯২ আসনে জয়লাভ

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in