রাজ্যসভাতেও কৃষি আইনের পক্ষে সওয়াল প্রধানমন্ত্রীর, কৃষকদের বাড়ি ফেরার অনুরোধ

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০১৪ সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকেই কৃষকদের ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে কৃষিক্ষেত্রে পরিবর্তন শুরু করেছি আমরা। আমরা ক্ষুদ্র এবং প্রান্তিক কৃষকদের জীবন উন্নত করার লক্ষ্যে কাজ করছি।
রাজ্যসভাতেও কৃষি আইনের পক্ষে সওয়াল প্রধানমন্ত্রীর, কৃষকদের বাড়ি ফেরার অনুরোধ
রাজ্যসভায় নরেন্দ্র মোদীছবি সংগৃহীত

রাজ‍্যসভাতেও বিতর্কিত নতুন কৃষি আইনের হয়ে সওয়াল করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আজ তিনি বলেন, সদ‍্য পাশ হওয়া তিনটি কৃষি আইনকে সুযোগ দেওয়া উচিত। এতে কৃষকেরই উপকার হবে। বিক্ষোভকারী কৃষকদের ফিরে যাওয়ার অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, এমএসপি পদ্ধতি আগে যেমন ছিল, এখনও তাই থাকবে। বাজেট অধিবেশনে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ধন্যবাদ জ্ঞাপন পর্যায়ে এই মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, "২০১৪ সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকেই কৃষকদের ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে কৃষিক্ষেত্রে পরিবর্তন শুরু করেছি আমরা। ফসল বীমা প্রকল্পে পরিবর্তন এনে সেটিকে আরো কৃষক বন্ধু করে তোলা হয়েছে। PM-KISAN যোজনা চালু করা হয়েছে। আমরা ক্ষুদ্র এবং প্রান্তিক কৃষকদের জীবন উন্নত করার লক্ষ্যে কাজ করছি।"

বিরোধীদের আক্রমণ করে তিনি বলেন, এর আগে প্রতিটি সরকারই জোর দিয়ে বলেছিল কৃষিক্ষেত্রে সংস্কারের প্রয়োজন রয়েছে। কিন্তু এখন যখন সংস্কার করা হচ্ছে, তখন তাঁরা বিরোধিতা করছেন। তাঁরা কেবল রাজনীতির জন‍্যই বিরোধিতা করছেন। এই প্রসঙ্গে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংয়ের করা একটি মন্তব্য পড়ে শোনান তিনি। তিনি বলেন, "মনমোহন জি এখানে উপস্থিত রয়েছেন। আমি ওনার একটি মন্তব্য পড়ছি। যারা ইউ-টার্ন নিয়েছেন (কৃষি আইন প্রসঙ্গে) তাঁরা ওনার মন্তব্য সমর্থন করবেন সম্ভবত। '১৯৩০-এর দশকে বিপণন ব‍্যবস্থার কারণেই একাধিক কাঠিন্যের সৃষ্টি হয়েছে এর কারণে কৃষকরা যেখানে সর্বাধিক মূল্য পাবেন সেখানে পণ‍্য বিক্রি করতে বাধা পাচ্ছেন... আমাদের উদ্দেশ্য হলো ভারতের পথে আসা এই সমস্ত প্রতিবন্ধকতাকে সরিয়ে বিশাল সাধারণ বাজারের সম্ভাবনা তৈরি করা'"

আজ রাজ‍্যসভাতে "আন্দোলনজীবিদের" কটাক্ষ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, "দেশে এক নতুন ধরনের আন্দোলনজীবি সত্তা এসেছে। যেখানেই বিক্ষোভ হয় সেখানেই তাঁদের দেখা যায়, তা সে আন্দোলন আইনজীবি, শিক্ষার্থী বা শ্রমিকদের আন্দোলন হোক না কেন। 'আন্দোলন' ছাড়া এঁরা বাঁচতে পারে না। আমাদের তাঁদের চিহ্নিত করতে হবে এবং তাঁদের হাত থেকে দেশকে রক্ষা করতে হবে।"

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in