Agnipath: অগ্নিপথ বিরোধী বিক্ষোভে তেলেঙ্গানায় মৃত ১, আহত বেশ কয়েকজন

বিক্ষোভকারীরা স্টেশনে তাণ্ডব চালিয়ে দুটি ট্রেনে আগুন ধরিয়ে দেয় এবং স্টেশন ভাঙচুর করার পরে পুলিশ গুলি চালায়। আহতদের স্থানীয় গান্ধী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
Agnipath: অগ্নিপথ বিরোধী বিক্ষোভে তেলেঙ্গানায় মৃত ১, আহত বেশ কয়েকজন
সেকেন্দ্রাবাদ স্টেশনে ভাঙচুরের পরছবি রাজেশের ট্যুইটার হ্যান্ডেলের সৌজন্যে

তেলেঙ্গানায় ‘অগ্নিপথ’ বিরোধী বিক্ষোভে মৃত্যু হল ১ যুবকের। কেন্দ্রীয় সরকারের নতুন সামরিক নিয়োগ নীতির বিরুদ্ধে শুক্রবার সেকেন্দ্রাবাদ রেলওয়ে স্টেশনে বিক্ষোভরত যুবকদের উপর পুলিশ গুলি চালালে ওই যুবক নিহত হয় এবং এই ঘটনায় আরও তিনজন আহত হয়েছে।

বিক্ষোভকারীরা স্টেশনে তাণ্ডব চালিয়ে দুটি ট্রেনে আগুন ধরিয়ে দেয় এবং স্টেশন ভাঙচুর করার পরে পুলিশ গুলি চালায়। আহতদের স্থানীয় গান্ধী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শুক্রবার সকালে বিপুল সংখ্যক বিক্ষোভকারী সেকেন্দ্রাবাদ স্টেশনে এবং রেললাইনে অবস্থান করায় পরিস্থিতি ক্রমশ উত্তেজনাপূর্ণ হতে থাকে। বিক্ষোভকারীরা পুলিশের উপর ঢিল ছুঁড়তে শুরু করে। পুলিশের পক্ষ থেকে রাবার বুলেট ও ​​টিয়ারগ্যাসের শেল নিক্ষেপ করে পাল্টা জবাব দেওয়া হয়। রেলওয়ে প্রোটেকশন ফোর্স (RPF), সরকারি রেলওয়ে পুলিশ ও সিটি পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করছে।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ওই এলাকায় অতিরিক্ত বাহিনী পাঠানো হয়। ইতিমধ্যেই সমস্ত ট্রেন বাতিল করেছে কর্তৃপক্ষ। তেলেঙ্গানা স্টেট রোড ট্রান্সপোর্ট কর্পোরেশন (TSRTC) বাসগুলিকেও স্টেশনের বাইরে লক্ষ্যবস্তু করা হয়। কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে ওই এলাকায় বাস পরিষেবা স্থগিত করা হয়েছে।

বিক্ষোভ ক্রমশ হিংস্র হয়ে ওঠার পর রেলস্টেশনে ইস্ট কোস্ট এক্সপ্রেসে আগুন ধরিয়ে দেয় কয়েক শো বিক্ষোভকারী। যাত্রীরা তাদের নিরাপত্তার জন্য ছোটাছুটি করেন। বিক্ষোভের জেরে ইস্ট কোস্ট এক্সপ্রেসের বেশ কয়েকটি বগি পুড়ে গেছে।

এদিন কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে স্লোগান তুলে বিক্ষোভকারীরা স্টেশন, স্টল, ডিসপ্লে বোর্ড এবং রেলের অন্যান্য সম্পত্তিতে এবং ট্রেনের একটি বগিতে আগুন ধরিয়ে দেয়। রেলওয়ে বিভাগের পার্সেলের জিনিসপত্র ট্র্যাকের উপর ফেলে দিয়ে তাতেও আগুন ধরিয়ে দেয় বিক্ষোভকারীরা।

বিক্ষোভকারীরা 'জয় জওয়ান জয় কিষাণ' এবং 'ভারত মাতা কী জয়' স্লোগান দেয় এবং সরকারের সাম্প্রতিক ঘোষিত অগ্নিপথ প্রকল্পটি বাতিল করে নিয়োগের বর্তমান ব্যবস্থা চালিয়ে যেতে হবে।

গত ৩-৪ বছর ধরে যে নিয়োগ পরীক্ষায় তারা প্রস্তুতি নিচ্ছিল সরকার সেই নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল করায় যুবকরা ক্ষুব্ধ। তারা বলেছে যে কেন্দ্র নতুন প্রকল্প বাতিল না করা পর্যন্ত তাদের প্রতিবাদ চলবে।

বড় আকারের হিংসার পরে, তেলেঙ্গানার সমস্ত রেলস্টেশনে সতর্কতা জারি করা হয়েছে। হায়দরাবাদের নামপল্লী, কাচেগুদা এবং অন্যান্য রেলস্টেশনে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে কাজিপেট এবং জানগাঁও রেলওয়ে স্টেশনেও বাহিনী পাঠানো হয়েছে।

সেকেন্দ্রাবাদ স্টেশনে ভাঙচুরের পর
Agnipath: বিহার জুড়ে 'অগ্নি' বিক্ষোভ, বিজেপি নেতাদের সম্পত্তি, রেলের ওপর লাগাতার আক্রমণ

GOOGLE NEWS-এ আমাদের ফলো করুন

Related Stories

No stories found.
People's Reporter
www.peoplesreporter.in