কেরালার শবরীমালা মন্দিরে মহিলাদের প্রবেশাধিকার নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে মামলা চলাকালীনই ফের বিতর্ক দানা বাঁধলো। সম্প্রতি সুপ্রিম কোর্টে রাজ্য সরকার শবরীমালা মন্দিরে মহিলাদের প্রবেশের পক্ষে মতামত জানায়। রাজ্য সরকারের এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে আগামী ৩০ জুলাই শ্রীরাম সেনা, হনুমান সেনা, শ্রী আয়াপ্পা ধর্ম সেনা এবং বিশাল বিশ্বকর্মা ঐক্য বেদি নামক চারটি সংগঠন বনধের ডাক দিলো।

এর আগে গত ১৮ জুলাই সুপ্রিম কোর্টের পক্ষ থেকে পাঁচ বিচারকের এক বেঞ্চ জানিয়েছিলো কেরালার শবরীমালা মন্দিরে মহিলাদের প্রবেশাধিকার তাঁদের সাংবিধানিক অধিকারের মধ্যে পড়ে। তাঁদের কোনোভাবেই মন্দিরে প্রার্থনা করা থেকে আটকানো যাবে না। যদিও গত ৮০০ বছর ধরে এই মন্দিরে ১০ থেকে ৫০ বছরের মহিলাদের প্রবেশাধিকার নেই। ২০০৬ সালে এই বিষয়ে সুপ্রিম কোর্টে মামলা দায়ের করা হয়।

শবরীমালা মন্দিরে মহিলাদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞার বিষয়টিকে ১৯৯১ সালে প্রথম কেরালা হাইকোর্টে চ্যালেঞ্জ জানানো হয়।

শবরীমালা মন্দিরে মহিলাদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে মন্দিরের প্রধান তন্ত্রীর পৌত্র রাহুল ঈশ্বর জানিয়েছেন, প্রত্যেক মন্দিরেই আলাদা আলাদা নিয়ম থাকে। শবরীমালাতেও আছে। এখানেও আছে। এখানে কোনও ভেদাভেদ নেই। শুধুমাত্র বিধিনিষেধ আছে।


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন