আগামী ২৮ অক্টোবর থেকে বিহারে বিধানসভা ভোট শুরু হচ্ছে। তার আগে নির্বাচনী প্রচার চলছে জোরকদমে। প্রচারের মাঝেই নানা রাজনৈতিক দলের নেতারা প্রচারসভা চলাকালীনই জনতার রোষের মুখে পড়েছেন।

২ দিন আগে জনসভায় গিয়ে এক বয়স্ক মানুষের প্রতিবাদের মুখে পড়েন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী তথা এনডিএ-র পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী নীতীশ কুমার। বিজেপি নেতা তথা কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী নিত্যানন্দ রাই হাজিপুরে নির্বাচনী প্রচারে গিয়ে জনতার 'গো ব্যাক' স্লোগানের মুখে পড়েন। বেকারত্বের পরিমাণ বৃদ্ধি পাওয়ায় ভারতীয় জনতা পার্টিকে আর তাঁরা ভোট দেবেন না বলেও চিৎকার করে স্লোগান দিতে থাকেন। অন্যদিকে, দলীয় কার্যালয়ে জড়ো হয়ে বিজেপি নেতারা জানান, বিরোধী রাষ্ট্রীয় জনতা দলের সমর্থকরা নির্বাচনী প্রচারে অশান্তি সৃষ্টি করার চেষ্টা করছেন।

বিহারের শ্রমমন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা বিজয় কুমার সিনহাও পাতনার গ্রামে জনসভা করতে গিয়ে প্রতিবাদের মুখে পড়েন। এলাকার বেহাল রাস্তাকে সামনে রেখে গ্রামবাসীরা চিৎকার করে বলতে থাকেন,' না রাস্তা, না ভোট। গো ব্যাক গো ব্যাক'। আগের বারের প্রতিশ্রুতি অনুসারে কোনও কাজ না হওয়ায় মন্ত্রীকে সামনে পেয়ে গালিগালাজও করা হয়। গত ২৪ ঘণ্টায় এই নিয়ে দু'বার প্রতিবাদের মুখে পড়তে হয়েছে সিনহাকে। জেডিইউ নেতা ও বিহার মন্ত্রী মহেশ্বর হাজারিকেও পুসার পথে আটকে দেয় এলাকার প্রতিবাদী মানুষ। এলাকায় উন্নয়নের কাজ কেন হয়না প্রশ্ন করা হলে তিনি কোনও উত্তর দিতে পারেননি। এরপরই গ্রামবাসীরা স্লোগান দিয়ে মন্ত্রীকে গ্রাম থেকে বেরিয়ে যেতে বলা হয়। 


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন