চলতি মাসেই কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী হর্ষবর্ধন আয়ুষ মন্ত্রকের তরফে কোভিড ১৯ মোকাবিলায় একটি নির্দেশিকা প্রকাশ করেছিলেন। কোভিড সংক্রমণ মোকাবিলায় আয়ুর্বেদিক, যোগ, ইউনানি, সিদ্ধা এবং হোমিওপ্যাথি চিকিৎসার কথা এই নির্দেশিকায় উল্লেখ করা হয়েছিল। এই নির্দেশিকা প্রকাশের পরই ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল কাউন্সিলের তরফে মন্ত্রীর এই পদক্ষেপকে ভর্ৎসনা করা হয়েছে। কাউন্সিলের তরফে জানানো হয়েছে, কোভিড ১৯ রোগীদের জন্য এই পন্থা কখনই সঠিক হতে পারে না।

কাউন্সিলের তরফে স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে চ্যালেঞ্জ করে পাঁচটি প্রশ্ন করা হয়েছে। বলা হয়েছে, এখনও পর্যন্ত ক'জন মন্ত্রী এই আয়ুষ-এর অধীনে চিকিৎসাধীন থেকেছেন? কোভিড আটকাতে কেন্দ্রীয় সরকার অশ্বগন্ধা, গুডুচি, পিপুল, আয়ুষ ৬৪ ট্যাবলেট এবং যোগা করার নিদান দিয়েছে। অল্প উপসর্গ দেখা দিলে বা কোভিড পরবর্তী সময়েও এই টোটকাগুলো কাজে লাগানোর কথা বলা হয়েছে।

 

মন্ত্রকের তরফে আরও জানানো হয়েছে, এই ওষুধ ও নির্দিষ্ট ডায়েট মেনে চলার সঙ্গে সঙ্গে হলুদ মেশানো দুধ, পাঁচন পান করা, নাকে ঔষৌধি তেল দিয়ে মাসাজ করা, জোয়ান বা ইউক্যালিপটাস তেল ফেলে গরম জলের ভ্যাপার নেওয়ার কথাও বলা হয়েছে। এক প্রেস বিবৃতিতে আএমএ-র সর্বভারতীয় সভাপতি রঞ্জন শর্মা এবং সেক্রেটারি জেনারেল আরভি অশোকন এই মর্মে পাঁচটি প্রশ্ন করেছেন এবং অবিলম্বে রিপোর্ট চেয়েছেন। কোভিড কেয়ার এবং তা নিয়ন্ত্রণে আয়ুষ মন্ত্রক কেন সব দায়িত্ব হস্তান্তর করে নিচ্ছে না তাও ভর্ৎসনার সুরে জানানো হয়েছে। ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের তরফে দাবি করা হয়েছে, স্বাস্থ্যমন্ত্রী যেন নিজের ভাবমূর্তি পরিষ্কার রাখেন।


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন