নীতিশ কুমার যদি আবার বিহারের মুখ্যমন্ত্রী হন সেক্ষেত্রে চিরাগ পাসোয়ানের নেতৃত্বাধীন এলজেপি এনডিএ সঙ্গ ত্যাগ করবে। শনিবার এক বিবৃতিতে একথা জানিয়েছেন চিরাগ পাসোয়ান। গতকালই বিজেপির পক্ষ থেকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর চিরাগ পাসোয়ানকে ‘ভোট কাটুয়া’ বলে অভিহিত করেছিলেন। এরপরেই শনিবার চিরাগ পাসোয়ানের এই আক্রমণ।

এদিন চিরাগ পাসোয়ান বলেন – বিজেপি নেতৃত্বের কাছ থেকে এই ধরণের মন্তব্য আমি আশা করিনি। তাদের এরকম মন্তব্য করার আগে ভাবা উচিৎ ছিলো। নীতিশ কুমার সম্পর্কে আমার অবস্থান পরিষ্কার। যদি তিনি আবার বিহারের মুখ্যমন্ত্রী হন আমি এনডিএ ছেড়ে বিরোধী আসনে বসবো।

আসন্ন বিহার বিধানসভা নির্বাচনে একক শক্তিতে এলজেপি ১৪৩ আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। এলজেপি জানিয়েছে যেসব আসনে বিজেপি প্রার্থী থাকবে সেখানে এলজেপি প্রার্থী দেবে না। যদিও বিহারে বিজেপির ভাগে পড়েছে ১২১ আসন। সেক্ষেত্রে বেশ কিছু আসনে বিজেপির সঙ্গে এলজেপির প্রতিদ্বন্দ্বিতার সম্ভাবনা উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না।

ইতিমধ্যেই বিজেপির মনোনয়ন না পেয়ে ৯ জন বিজেপি নেতা এলজেপির টিকিটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। যাঁদের বিজেপি সাসপেন্ড করেছে।

প্রসঙ্গত, শুক্রবারই এলজেপি প্রধান চিরাগ পাশোয়ান দাবি করেন ‘আমার হৃদয় চিরে দেখুন, মোদীজীকে পাওয়া যাবে’। আর ওইদিনই বিজেপির প্রকাশ জাভড়েকর জানান, চিরাগ পাসোয়ান বা এলজেপির সঙ্গে বিজেপির কোনো সম্পর্ক নেই। চিরাগ পাসোয়ান জনমানসে বিভ্রান্তি তৈরি করার চেষ্টা করছেন। কেন্দ্রের জোটসঙ্গীকে এই আক্রমণ কার্যত নজিরবিহীন বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

বিহার বিধানসভা নির্বাচনে নীতিশ কুমারের সঙ্গে মতান্তরের জেরে এককভাবে লড়াই করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে চিরাগ পাসোয়ানের এলজেপি। যদিও এলজেপি ঘোষণা করেছে বিজেপির বিরুদ্ধে কোনো প্রার্থী দেওয়া হবেনা। ইতিমধ্যেই চিরাগ পাসোয়ান বিজেপির শীর্ষ স্থানীয় নেতৃত্বের সঙ্গে তাঁর সুসম্পর্কের কথা প্রচারে তুলে আনতে চাইছেন। যা নিয়ে আপত্তি জানিয়েছে বিহার বিজেপি এবং নীতিশ কুমার।


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন