তৃতীয় দিনেও কৃষি বিল নিয়ে নাটক অব‍্যাহত রাজ‍্যসভায়। বিলের বিরোধিতা করায় বহিষ্কৃত হওয়া আট বিরোধী সাংসদের সাসপেনসন প্রত‍্যাহার না করলে রাজ‍্যসভার চলতি অধিবেশন বয়কট করবে বিরোধীরা‌। রাজ‍্যসভায় আজ পরিষ্কারভাবে এই কথা জানিয়ে দিলেন কংগ্রেস সাংসদ গুলাম নবি আজাদ।

গতকাল থেকে সংসদ ভবনের লনে ধর্নায় বসেছেন বহিষ্কৃত আট সাংসদ। এঁদের মধ্যে রয়েছেন সিপিআইএমের কে কে রাগেশ ও ই করিম, কংগ্রেসের রাজীব সাতভ, সৈয়দ নাজির হোসেন, রিপুন ভোরা, আম আদমি পার্টির সঞ্জয় সিং এবং তৃণমূলে কংগ্রেসের ডেরেক ও'ব্রায়েন ও দোলা সেন।

আজ রাজ‍্যসভার অধিবেশন শুরু হতেই বহিষ্কৃত সাংসদদের সাসপেনসন প্রত‍্যাহারের দাবি সহ তিনটি দাবি পেশ করেন গুলাম নবি আজাদ। দাবিগুলো ছিল- সরকার কৃষকদের স্বার্থে এমন একটি বিল আনুক, যেখানে কোনো বেসরকারি সংস্থা যেন সরকার নির্ধারিত ন্যূনতম সমর্থন মূল্যের (এমএসপি) নীচে খাদ‍্যশস‍্য সংগ্রহ করতে না পারে এবং স্বামীনাথন কমিশনের সুপারিশ অনুযায়ী এই এমএসপি নির্ধারণ করা হয়।

কিন্তু সাংসদদের সাসপেনসন প্রত‍্যাহারের আবেদন প্রত‍্যাখান করে দেন চেয়ারম্যান বেঙ্কাইয়া নাইডু। এরপরই অধিবেশন বয়কটের সিদ্ধান্ত নেন বিরোধীরা। কংগ্রেসের নেতৃত্বে সিপিআইএম, আম আদমি পার্টি ও তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদরা অধিবেশন বয়কট করে সভাকক্ষ ছেড়ে বেরিয়ে আসেন।

অন্যদিকে আজ সকালে ধর্নায় বসা সাংসদদের জন্য চা নিয়ে উপস্থিত হয়েছিলেন রাজ‍্যসভার ডেপুটি চেয়ারম্যান হরিবংশ। কিন্তু তাঁরা তাঁকে "কৃষক-বিরোধী" আখ‍্যা দিয়ে চায়ের নিমন্ত্রণ প্রত‍্যাখান করেন।

চা-কূটনীতি ব‍্যর্থ হওয়ায় একদিনের অনশনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন হরিবংশ। বেঙ্কাইয়া নাইডুকে চিঠি লিখে রবিবার সংসদে হওয়া ঘটনার শোক প্রকাশ করেছেন তিনি। চিঠিতে তিনি লেখেন, "সাংসদদের আচরণে আমি মর্মাহত। গত দু'দিন ধরে আমি মানসিক চাপে রয়েছি। ঘুমোতে পারিনি।"


পিপলস রিপোর্টার এর সব খবর এখন Telegram-এও।
সাবস্ক্রাইব করতে ক্লিক করুন এই লিঙ্কে - t.me/peoplesreporter 
সব খবর পেয়ে যান হাতের মুঠোয়, এক মুহূর্তে
গুজবে নয়, খবরে থাকুন পিপলস রিপোর্টারের সঙ্গে থাকুন


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন