চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনকে ঘিরে উত্তর-পূর্ব দিল্লিতে যে দাঙ্গা হয়েছিল সেই ঘটনায় চার্জশীট জমা দিল দিল্লি‌ পুলিশ। চার্জশীটে ১৫ জন অভিযুক্তের নাম উল্লেখ করেছে পুলিশ, ‌প্রত‍্যেকেই সিএএ বিরোধী আন্দোলনের সাথে যুক্ত রয়েছে। প্রায় ১৭,৫০০ পৃষ্ঠার ওই চার্জশীটে ২,৬০০-এর ‌বেশি পৃষ্ঠায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ বিস্তারিত ভাবে বর্ণনা করা হয়েছে। দুটি বড় বড় স্টিলের ট্রাঙ্কে করে এই চার্জশীট নিয়ে যাওয়া হয়েছে কর্কর্দুমা আদালতে। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে সন্ত্রাস-বিরোধী Unlawful Activities (Prevention) Act বা UAPA, আইপিসি এবং অস্ত্র আইন প্রয়োগ করা হয়েছে।

 তবে তদন্ত এখনও চলছে বলে জানিয়েছে দিল্লি পুলিশ। যে সমস্ত‌ অভিযুক্তদের নাম এই চার্জশীটে নেই, সাপ্লিমেন্টারি চার্জশীটে তাদের নাম দেওয়া হবে বলেও জানিয়েছে পুলিশ।

আদালতে পুলিশ জানিয়েছে, "দাঙ্গাকারীদের সাথে প্রত‍্যক্ষ যোগাযোগ ছিল এই ষড়যন্ত্রকারীদের।" প্রায় ২৫টি হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ তৈরি করা হয়েছিল বিভিন্ন অঞ্চলে দাঙ্গা লাগানোর জন্য। এক্ষেত্রে দুটি হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপের কথা উল্লেখ করেছে পুলিশ, যেগুলো সীলমপুর ও জাফরাবাদ থেকে নিয়ন্ত্রণ করা হতো। পুলিশের দাবি, এই গ্রুপে অঞ্চল স্তরের নেতাদের মধ্যস্থতায় দাঙ্গার পরিকল্পনা করেছিল ষড়যন্ত্রকারীরা।

তবে বুধবার দায়ের করা এই চার্জশীটে উমর খালিদ ও শার্জীল ইমামের নাম নেই। দিল্লি দাঙ্গার ষড়যন্ত্রকারী হিসেবে কিছুদিন আগেই গ্রেফতার করা হয়েছে উমর খালিদকে। আরো বেশ কয়েকদিন আগে গ্রেফতার করা হয়েছিল শার্জীল ইমামকে।‌ মনে করা হচ্ছে সাপ্লিমেন্টারি চার্জশীটে এদের নাম থাকবে।

প্রসঙ্গত, ফেব্রুয়ারি মাসের ‌শেষের দিকে নাগরিকত্ব আইনকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল উত্তর-পূর্ব দিল্লি। ৫৩ জনের‌ মৃত্যু হয়েছিল এবং দু'শ জন ‌আহত হয়েছিলেন।


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন