২৮ বছর পর বাবরি মসজিদ ধ্বংস মামলায় রায় ঘোষণা করতে চলেছে বিশেষ আদালত। আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর সিবিআইয়ের বিশেষ আদালতে এই মামলার শেষ শুনানির পর রায় ঘোষণা করা হবে। অভিযুক্ত ৩২ জন আসামীকেই ওই দিন আদালতে হাজির থাকার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি ‌এস কে যাদব। এই অভিযুক্তদের মধ্যে বিজেপির প্রবীণ নেতা লালকৃষ্ণ আদবাণী, মুরলী মনোহর যোশী, উমা ভারতীর নাম রয়েছে।

 পঞ্চদশ শতাব্দীতে তৈরি প্রাচীন এই বাবরি মসজিদটি ১৯৯২ সালের ডিসেম্বর মাসে ভেঙে ফেলা হয়েছিল। মসজিদ ভাঙায় উল্লেখযোগ্য ভূমিকা ছিল লালকৃষ্ণ আদবাণী, মুরলী মনোহর যোশী, উমা ভারতীদের। এঁদের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছিল - এই স্থান রামের জন্মভূমি। রাম মন্দির ভেঙে মসজিদ নির্মাণ করা হয়েছে। গত বছরের নভেম্বর মাসে সুপ্রিম কোর্ট এই বিতর্কিত জমির ওপর রাম মন্দির নির্মাণের রায় ঘোষণা করেছে।

দীর্ঘদিন ধরে বাবরি মসজিদ  ধ্বংস মামলার বিচার প্রক্রিয়া চলছে। গত মাসে সুপ্রিম কোর্ট ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ‍্যে রায় ঘোষণা করার নির্দেশ দেয়। তার ‌আগে ৩১ আগস্টের মধ্যে রায় ঘোষণার নির্দেশ দিয়েছিল আদালত। তারও আগে গত বছরের জুলাই মাসে ৯ মাসের মধ্যে বিচার শেষ করার নির্দেশ দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। এর আগে ২০১৭ সালের এপ্রিল মাসে বিচারপতি এস কে যাদবকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল ২ বছরের মধ্যে মামলার রায় ঘোষণা করতে।

 লখনউয়ে সিবিআই আদালত ফৌজদারি আইনের অধীনে অভিযুক্ত ৩২ জনের বয়ান নথিভুক্ত করেছে। গত ২৪ জুলাই ৯২ বছরের আদবাণী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আদালতের সামনে নিজের বয়ান দেন। ৮৬ বছরের মুরলী মনোহর যোশী এর ঠিক একদিন আগে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বয়ান দিয়েছিলেন। দু'জনেই তাঁদের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করেছিলেন।


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন