বিহার বিধানসভা নির্বাচনের মুখেই বড়ো ধাক্কা আরজেডি শিবিরে। এদিনই দল থেকে ইস্তফা দিলেন লালু প্রসাদ যাদবের গত ৩২ বছরের সঙ্গী রঘুবংশ প্রসাদ সিং। আরজেডি-র জন্মলগ্ন থেকে তিনি সুপ্রিমো লালু প্রসাদ যাদবের বিশ্বস্ত সঙ্গী, অনুগামী ছিলেন। তাঁর ইস্তফায় কার্যত বিধ্বস্ত লালু প্রসাদ যাদব জানিয়েছেন – তিনি একথা বিশ্বাস করতে পারছেন না।

এদিন তাঁর চিঠিতে রঘুবংশ প্রসাদ সিং জানান – জননায়ক কর্পূরী ঠাকুরের মৃত্যুর পর থেকে গত ৩২ বছর আমি আপনার সঙ্গে ছিলাম। কিন্তু আর না। আমি দল থেকে দলের কর্মীদের থেকে, সাধারণ মানুষের থেকে যে ভালোবাসা পেয়েছি তার জন্য আমি কৃতজ্ঞ। আমি দুঃখিত।

উল্লেখ্য, এই মুহূর্তে করোনা সংক্রমণ এবং অন্যান্য কিছু শারীরিক সমস্যার জন্য নয়াদিল্লীর এইমস হাসপাতালে ভর্তি আছেন রঘুবংশ প্রসাদ সিং। অন্যদিকে রাঁচির রাজেন্দ্র ইন্সটিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্স-এ ভর্তি আছেন লালুপ্রসাদ যাদব।

সম্প্রতি রমা সিং-এর দলে অন্তর্ভুক্তি নিয়ে তেজস্বী যাদবের সঙ্গে দূরত্ব তৈরি হয়েছিলো রঘুবংশ প্রসাদ সিং-এর। এলজেপি-র প্রাক্তন সাংসদ, একাধিক অপরাধমূলক কাজের অভিযোগ থাকা রমা সিং-কে দলে নেবার ঘোরতর বিরোধী ছিলেন রঘুবংশ। যদিও তাঁর আপত্তিকে গুরুত্ব দেননি তেজস্বী যাদব। এর প্রতিবাদে গত জুন মাসেই তিনি দলের জাতীয় সহ সভাপতি পদ থেকে ইস্তফা দেন।

এর আগে রঘুবংশ প্রসাদকে বোঝানোর জন্য হাসপাতালে গিয়ে তাঁর সঙ্গে দেখা করেছিলেন তেজস্বী যাদব। যদিও এদিনের ইস্তফা বুঝিয়ে দিলো সেই সাক্ষাতে বিশেষ কাজ হয়নি। রঘুবংশ প্রসাদ সিং-এর দলত্যাগে আগামী বিধানসভা নির্বাচনে বড় ক্ষতির মুখে পড়বে আরজেডি বলেই রাজনৈতিক মহলের অভিমত।


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন