৪৮ ঘন্টার মধ্যে দুটি পৃথক গণপিটুনির ঘটনায় উত্তপ্ত হয়ে উঠলো আসামের একাংশ। একটি ঘটনায় উত্তেজিত জনতার নির্মম অত‍্যাচারের হাত থেকে নির্যাতিতকে কোনোভাবে উদ্ধার করা সম্ভব হলেও অপর ঘটনায় প্রাণ হারান নির্যাতিত।

একটি ঘটনা ঘটেছে মধ‍্য আসামের বিশ্বনাথে। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, পারিবারিক কলহ অত‍্যধিক হিংস্র হয়ে ওঠার কারণে সাবিন গৌড় নামের এক ব‍্যক্তিকে পিটিয়ে হত‍্যা করেছে তাঁর ভাইয়ের বন্ধুরা। প্রত‍্যক্ষদর্শীদের কথায়, সাবিন গৌড়কে একটি গাছের সাথে বেঁধে বেধড়ক মারছিলেন তাঁর ভাই নবীন গৌড়ের বন্ধুরা।

পুলিশ জানিয়েছে, "সাবিন এবং নবীন দুজনেই প্রতাপগড় টি এস্টেটে দিনমজুরের কাজ করেন। বৃহস্পতিবার কোনো একটি বিষয় নিয়ে দুজনের মধ্যে বিবাদ শুরু হয় এবং তা মারামারিতে পৌঁছায়। সাবিন প্রথমে কোনো ধারালো একটি বস্তু দিয়ে নবীনকে আঘাত করেন। নবীনকে তৎক্ষণাৎ স্থানীয় একটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তাঁর চিকিৎসা চলছে। শুক্রবার নবীনের বন্ধুরা এই খবর জানতে পেরে সাবিনকে একটি গাছের সাথে বেঁধে বেধড়ক মারধর করেন।"

পুলিশ এসে সাবিনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলেও ততক্ষণে তাঁর মৃত্যু হয়েছে। এই ঘটনায় জড়িত চারজন অভিযুক্তকে আটক করেছে পুলিশ।

অপর ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিম আসামের বনগাইগাঁর দেবানগাঁওয়ে। এক ব‍্যক্তিকে চোর সন্দেহে ব‍্যাপক মারধর করে এক পরিবারের সদস্যরা।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, "নেশাগ্রস্ত অবস্থায় মাজন নাথ নামের ব‍্যক্তি শনিবার কমলেশ্বর নাথ নামের একজনের বাড়ির ভেতরে ঢুকে সেখানেই ঘুমিয়ে যায়। বাড়ির এক মহিলা তাকে মেঝের ওপর শুয়ে থাকতে দেখে বাইরে থেকে তালা ঝুলিয়ে লোকজন ডাকেন। এরপর পরিবারের সদস্য ও স্থানীয়রা মিলে বেধড়ক মারে তাকে।"

পরে মাজন নাথকে নিকটবর্তী বোইতামারি থানায় নিয়ে গেলে জানা যায় তিনি চোর নন, দরজা খোলা রয়েছে দেখে নেশার ঝোঁকে বাড়ির মধ্যে ঢুকে ঘুমিয়ে গিয়েছিলেন তিনি।

এর আগে আসামের কামরূপ রুরাল এলাকায় এক সবজি বিক্রেতাকে পিটিয়ে হত‍্যা করেছিল স্থানীয়রা এবং জোড়হাট জেলায় এই যুবককে পিটিয়ে হত‍্যা করেছিল চা বাগানের কিছু শ্রমিক।


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন