মুক্ত নয়, বন্দিদশাতেই রয়েছেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী সইফউদ্দিন সোজ। সম্প্রতি সুপ্রিম কোর্টে জম্মু-কাশ্মীর প্রশাসনের তরফে জানানো হয়, সোজকে কখনই বন্দি করা হয়নি, তিনি মুক্তই রয়েছেন। এবার প্রশাসনের এই দাবিকে মিথ্যা বলে এগিয়ে এসেছে সেখানকার রাজনৈতিক দলগুলো।

গত বুধবার এই বিষয়টি নিয়ে বিতর্কের সৃষ্টি হয়। বৃহস্পতিবার টুইট করে অবিলম্বে সোজকে মুক্তি দেওয়ার দাবি জানান রাহুল গান্ধি। সোজের দাবি, গত বছরের ৫ অগস্ট বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহারের পর থেকে অন্যান্য নেতাদের মত তাঁকেও গৃ্হবন্দি করা হয়। যদিও একথা মানতে রাজি নয় সেখানকার প্রশাসন।

একটি ভিডিওতে দেখা গিয়েছে, শ্রীনগরে নিজের বাড়ির চত্বর থেকে সোজকে বলতে দেখা যায়, কাশ্মীরে পুলিশ রাজ চলছে। সুপ্রিম কোর্টে ঠিক কথা বলেনি সরকার। অন্যদিকে, জম্মু-কাশ্মীর পুলিশের দাবি, করোনার কারণেই সোজকে বেরোতে বা কাউকে বাড়িতে আসতে দেওয়া হচ্ছে না। উপত্যকার প্রিন্সিপাল সেক্রেটারি রোহিত কানসাল টুইট করে জানান, সোজকে গৃহবন্দি করে রাখা হয়নি। তিনি অক্টোবর ও ডিসেম্বর মাসে দু'বার দিল্লিতে গিয়েছিলেন। সুতরাং সুপ্রিম কোর্টে মিথ্যা বলার কোনও প্রসঙ্গই নেই।

যদিও প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা এনসি নেতা ওমর আবদুল্লা জানিয়েছেন, সোজ দিল্লি গিয়েছিলেন চিকিৎসা করাতে। ফিরে আসতেই তাঁকে ফের গৃহবন্দি করা হয়। তিনি আরও বলেন, সোজের সঙ্গে যা হচ্ছে তা খুবই দুর্ভাগ্যজনক, কিন্তু আশ্চর্য নয়। দলেরই ১৫ জন নেতাকে এরকম বেআইনিভাবেই গৃহবন্দি করে রাখা হয়েছে। দলের মুখপাত্র ইমরান নবি দার অভিযোগ করেছেন, সরকার সবসমই মিথ্যা বলে এসেছে। সোজের সঙ্গে পুলিশ যা করছে, তা নিন্দনীয়।   


জনপ্রিয় খবর

  • এই সপ্তাহের এর

  • এই মাস এর

  • সর্বকালীন